স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে ফের অভিযোগ জমা পরল নির্বাচন কমিশনে৷ এবার শাসক দলের যুবরাজ এবং তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ‘ফেক নিউজ’ ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছে বাবুলের বিরুদ্ধে৷

আরও পড়ুন- ২৬ দিনের মাথায় রিপোর্ট তলব মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের, স্বস্তিতে অনশনকারীরা

এর আগে রবিবার মুম্বইয়ের একটি স্টুডিওতে রেকর্ড করিয়েছেন সেই গান। যে গানের মূল কথা হল ফুটবে এবার পদ্মফুল, বাংলা ছাড়ো তৃণমূল। তৃণমূল কংগ্রেস বিরোধী প্রায় সকল শ্লোগান ব্যবহার করা হয়েছে ওই গানে। কটাক্ষ করা হয়েছে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর অনুগামীদের।

আরও পড়ুন- নীতি আয়োগের রাজীবকুমার উড়িয়ে দিলেন রাহুল গান্ধীর আর্থিক প্রতিশ্রুতি

এই থিম সং নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক। কারণ ওই গানে ব্যবহৃত হয়েছে অনেক শ্লোগান। যেগুলি বাম বামেরা ব্যবহার করে থাকে। ‘এই তৃণমূল আর না’, এই শ্লোগানটি ২০১৩ সাল থেকেই ব্যবহার করে বামেরা। ‘চোর গুণ্ডা দেশ চালায়, পুলিশ লুকায় টেবিলের তলায়’। এই শ্লোগানটি গত নভেম্বর মাসের শেষের দিকে কলকাতায় বামেদের মিছিলে শোনা গিয়েছিল। একই সঙ্গে শোনা গিয়েছিল ‘এই তৃণমূল আর না’ শ্লোগান।

বামেদের মিছিলে সিপিএম-এর যুব সংগঠনের নেত্রী রিয়া মাইতির মুখে সেই শ্লোগানের ভিডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী রিয়া জানিয়েছিলেন যে শ্লোগানগুলি তার নিজের লেখা নয়। হলদিয়ার এক কমরেড ওই শ্লোগানগুলি লিখে দিয়েছিল বলে জানিয়েছিলেন ডিওয়াইএফএই এর বেলদা আঞ্চলিক কমিটির সদস্যা রিয়া।

আরও পড়ুন- বামেদের সঙ্গে সমঝোতার রাস্তা রেখেই প্রার্থী ঘোষণা কংগ্রেসের

বামেদের ব্যবহৃত এই সকল শ্লোগান নিয়েই গান বেঁধে ফেলেছে বিজেপি। যা গায়ক-সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়র মস্তিষ্ক প্রসূত। তাঁর তত্ত্বাবিধানেই গানটি লিখেছেন অমিত চক্রবর্তী। কন্ঠ অবশ্য বাবুল সুপ্রিয়ের। যা নিয়ে শুরু হয়ে গিয়েছে বিতর্ক। বামেদের পাশাপাশি তৃণমূল কংগ্রেস অনুগামীরাও বিজেপিকে কটাক্ষ করতে শুরু করে দিয়েছে।