নিউ ইয়র্ক: এবোলা নিরাময়ে নতুন করে অর্থসাহায্য নিয়ে ভাবছে রাষ্ট্রসংঘ। সে কারণে এবার অর্থসাহায্যের জন্য রাষ্ট্রসংঘের অন্তর্গত এনজিওদের থেকে সাহায্য নেওয়া হবে। আন্তর্জাতিক দাতাগোষ্ঠী বা এনজিওদের তরফে গিনি, লাইবেরিয়া ও সিয়েরালিওনে এবোলা প্রতিরোধে ৩৪০ কোটি মার্কিন ডলার দেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। এ কারণে একটি নতুন তহবিলও গঠন করা হচ্ছে। রাষ্ট্রসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির প্রধান হেলেন ক্লার্ক জানান, সর্বশেষ প্রতিশ্রুতির আওতায় দেশ তিনটিকে সহায়তায় এই তহবিল সংগ্রহ করা হবে। এই নিয়ে প্রাণঘাতী এই মহামারী ঠেকাতে সর্বমোট সহায়তার পরিমাণ দাঁড়াবে ৫১৮ কোটি মার্কিন ডলারে।

এই সংক্রান্ত আরও খবর

১.লাকভি ইস্যুতে রাষ্ট্রসংঘে ভারতের পথের কাঁটা চিন

২.নারীর দায়িত্বে রাষ্ট্রসংঘ?

৩.লাকভি ইস্যুতে ভারতের পাশে রাষ্ট্রসংঘ

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।