কল্যাণী: চর পাঠিয়ে নয়, নিজের চোখেই দেখে এসেছেন মোহন-মহামেডানের মিনি ডার্বি৷ সেই খালিদ জামিল এবার নিজেই পরীক্ষার্থীর হট সিটে৷ পাঠচক্রকে ‘বধ’ করে আট দিন পর ফের চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াইয়ে নামছে ইস্টবেঙ্গল৷ লক্ষ্য শক্তিশালী মহমেডানের বিরুদ্ধে তিন পয়েন্ট নিয়ে খেতাবের আরও কাছাকাছি পৌঁছে যাওয়া৷

বরাবরই প্রতিপক্ষকে সমীহ করে চলেন এই মুম্বইকর৷ শনিবাসরীয় মেগা ম্যাচেও তাই সাদা-কালো শিবিরের বিরুদ্ধে সর্তকিত পা-ফেলতে চান গতবারের আই লিগ জয়ী কোচ৷ কল্যাণীতে প্রস্ততি শেষে স্পষ্ট জানিয়ে দেন, মহামেডানের পুরো দলটাই ভয়ঙ্কর৷’ সাবধানী খালিদ ভালো করেই জানেন শিড়িগুড়ি ডার্বির আগে রানা ঘরামিদের কাছে পয়েন্ট হারালেই লিগ জয়ের অঙ্ক অনেক কঠিন হয়ে যায়৷ তাই তিন পয়েন্ট নিয়ে কল্যাণী ছাড়তে মরিয়া লাল-হলুদের ‘হেডস্যার’৷

আরও পড়ুন: ডার্বিতে মশাল নোভানোর চ্যালেঞ্জ নিচ্ছেন ডিকা

ময়দানি ইনিংসে প্রথম ছ’ম্যাচেই ছক্কা হাঁকিয়েছেন আই লিগ জয়ী কোচ৷ তাঁর দলকে সমস্যায় ফেলে এই লিগে এখনও কেউই পয়েন্ট ছিনিয়ে নিতে পারেনি৷ তবে লিগের টপ গোলদাতার গর্জনটাই লাল-হলুদকে বেশ কিছুটা চাপে রেখেছে৷ শেষ ম্যাচে রেলের বিরুদ্ধে ডিকা’র চার গোলই কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে জামিলের৷ ডিকার পাশাপাশি ফইয়াজ, মুর্মূরাও গোলের মধ্য রয়েছে৷ খালিদ তাই মেনে নিচ্ছেন, ‘শুধু বিদেশি নয়, ওদের দেশীয় ফুটবলাররাও প্রসংশীয় ফুটবল খেলছে৷ ডিকার ফর্ম প্রতিহত করা অবশ্যই আমাদের কাছে চ্যালেঞ্জ৷’

আরও পড়ুন:‘অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ ভারতীয় ফুটবলকে নতুন পথ দেখাতে পারে’

মিনি ডার্বিতে রক্ষণে ফিরছেন মিচেল আর মাঝমাঠে ব্রিগেডিয়ারের ভূমিকায় আমনা৷ ডিকা, ফইয়াজদের আটকাতে এই দুই অস্ত্রের উপরই বাড়তি জোর দিচ্ছেন লাল-হলুদ কোচ৷ মরশুমের শুরু খেকেই মাঝমাঠে ভরসা জুগিয়েছেন সিরিয়ান মিডিও৷ কল্যাণীতে সেট পিস ও উইং-এ বিশেষ জোর দিয়েছেন ইস্টবেঙ্গল কোচ৷ অন্যদিক লিগের শেষ ল্যাপে এসেও এখনও গুছিয়ে উঠতে পারেননি ইউলিস প্লাজা৷ বড় ম্যাচে তাই প্লাজার অফ ফর্ম লাল-হলুদ শিবিরকে কিছুটা হলেও সমস্যায় রেখেছে৷ স্ট্রাইকিং লাইনে শনিবারের ম্যাচে শুরু থেকে প্লাজার সঙ্গী হতে পারেন জবি জাস্টিন৷ পাশাপাশি জাতীয় দলে খেলে আসা অর্ণব-রফিকরাও এই ম্যাচে লাল-হলুদ জার্সিতে ফিরছেন৷ বাগান-মহমেডান ম্যাচে গোলের সামনে প্রাচীর হয়ে দাঁড়ানো শংকরের পারফরম্যান্সকেও গুরুত্ব দিচ্ছেন জামিল৷

আরও পড়ুন: ফুটবলের ভিতরেই পূজিত হবেন দেবী

কল্যাণীতে আবাসিক শিবির করার কথা থাকলেও পরে নিজেদের মাঠেই প্রস্ততি সারে ইস্টবেঙ্গল৷ মরশুমে অর্ণব-প্লাজারা প্রথমবার কল্যাণী ম্যাচ খেলতে চলেছে৷ উল্টোদিকে প্রতিপক্ষ মহামেডান কল্যাণীতে ইতিমধ্যেই দুটি ম্যাচ খেলে ফেলেছে৷ তাই নতুন পরিবেশে জয়ের ধারা বজায় রাখতে ফোকাস জামিল৷ সম্প্রীতির বার্তা দিতে শনিবাসরীয় লড়াইয়ে অভিনব কায়দায় দুই প্রতিপক্ষ নিজেদের জার্সির রঙের বেলুন উড়িয়ে শুরু হবে মিনি ডার্বি৷