কলকাতা: ডার্বির আগে তিন পয়েন্ট দরকার ছিল৷ সেটা এল বটে, কিন্তু যেভাবে এল তাতে কি খুশি লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচ? অ্যারোজের বিরুদ্ধে শুক্রবার কোনওক্রমে ম্যাচ জিতলেও চিন্তায় রাখবে ইস্টবেঙ্গলকে৷ ছোটদের বিরুদ্ধে এই হাল হলে লিগের বাকি ম্যাচে কঠিন সময়ে লাল-হলুদের কপালে আরও দুঃখ রয়েছে, এমনটা বলা যেতে পারে!

প্রথমার্ধে অ্যারোজ ডিফেন্সে বারবার প্রতিহত হওয়ায় মাথায় হাত লাল হলুদের৷ বেশ কয়েকবার সুযোগ তৈরি করেও প্রতিপক্ষের জালে বল রাখতে পারেনি লাল-হলুদের ফরওয়ার্ড লাইন৷ উল্টে ইন্ডিয়ান অ্যারোজের গতির সামনে ফিকে দেখাল ইস্টবেঙ্গলকে৷ জটলা থেকে বলের নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারলে ২১ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারক অ্যারোজ৷ অভিজ্ঞতার অভাবেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি ভারতের জুনিয়ররা৷

দিনের শেষে লাল-হলুদের পক্ষে স্কোর লাইন অবশ্য ১-০৷ দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে 48 মিনিটে জবির সেন্টার থেকে স্যান্টোসের গোল৷ প্রত্যাশা মতো ইস্টবেঙ্গল জিতলেও মাঠে অ্যারোজের ডিফেন্স ৯০ মিনিট যেভাবে আলেসান্দ্রোর রক্তচাপ বাড়িয়ে দিল তাতে ভারতের জুনিয়র দলের এই লড়াইকে কুর্নিশ জানাতেই হয়৷ ম্যাচের শেষ বাঁশি বাজার আগে লাল-কার্ড দেখে মাঠ ছাড়ে মনোজ মহাম্মদ৷

অ্যারোজের বিরুদ্ধে তিন পয়েন্ট পেয়ে অবশ্য পয়েন্ট তালিকায় চার নম্বরে উঠে এল ইস্টবেঙ্গল৷ ১২ ম্যাচে লাল-হলুদের পয়েন্ট ২২৷ তবে সমসংখ্যক ম্যাচ খেলে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে আই লিগের শীর্ষে রয়েছে চেন্নাই সিটি৷ দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে থাকা চার্চিল ব্রাদার্স ও রিয়াল কাশ্মীরের পয়েন্টও ইস্টবেঙ্গলের মতো ২২৷ কিন্তু গোল পার্থক্যে এগিয়ে থাকায় দুই ও তিন নম্বরে রয়েছে যথাক্রমে চার্চিল ও রিয়াল কাশ্মীর৷ আর ১৩ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে ছ’ নম্বরে রয়েছে মোহনবাগান৷