কলকাতা: চুক্তিভঙ্গের সমস্ত শর্তই মেনে নেওয়ার বিষয়ে রাজি হয়েছে ইস্টবেঙ্গল এবং কোয়েস দু’পক্ষই। সবকিছু ঠিকঠাক চললে আগামী সপ্তাহের মধ্যে কোয়েসের থাকে প্রয়োজনীয় রাইটস ফিরে পেয়ে যাবে ইস্টবেঙ্গল। সুতরাং, ক্লাব লাইসেন্সিং’য়ের ক্ষেত্রে আর কোনও সমস্যা রইবে না। কিন্তু ইনভেস্টর জোগাড় করে পড়শি মোহনবাগানের মতোই কী আসন্ন মরশুমে আইএসএলে পা রাখতে পারবে ইস্টবেঙ্গল?

সেজন্য ইস্টবেঙ্গল সমর্থদকদের আরও কিছুদিন অপেক্ষা এবং ধৈর্য ধরতে হলেও এরইমধ্যে আইএসএলে ইস্টবেঙ্গলকে আহ্বান জানালেন বেঙ্গালুরু এফসি মালিক পার্থ জিন্দাল। শনিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় লেসলি ক্লডিয়াস সরণির ক্লাবকে দেশের প্রধান লিগে আহ্বান জানিয়ে একটি টুইট করেন। টুইটে তিনি লেখেন, ‘কাম অন ইস্টবেঙ্গল। চলে এসো তোমরা। ইন্ডিয়ান সুপার লিগ তোমাদের স্বাগত জানাতে প্রস্তুত। আইএসএলে একমাত্র তোমরাই মিসিং।’

পার্থ জিন্দাল আইএসএলে কলকাতা জায়ান্টদের আমন্ত্রণ জানানোর দিনেই ইস্টবেঙ্গল কর্তা সদর্পে ঘোষণা করলেন, আমরা নিশ্চিতভাবে আইএসএল খেলব আসন্ন মরশুমে। পিটিআই’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইস্টবেঙ্গল কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য দেবব্রত সরকার আইএসএলে খেলার ব্যাপারে জানালেন, ‘আমি এটুকু বলতে পারি যে আমরা নিশ্চিতভাবেই আইএসএল খেলব।’ ভারতীয় ফুটবলের অন্যতম জনপ্রিয় ফুটবল কর্তা রঞ্জিত বাজাজ ইতিমধ্যেই ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ৭০ শতাংশ স্পোর্টিং রাইট কিনতে আগ্রহ দেখিয়েছেন। সবমিলিয়ে ইস্টবেঙ্গলের আইএসএল খেলার বিষয়ে এই মুহুর্তে কাজ করছে নানা পারমুটেশন-কম্বিনেশন।

এটিকে-মোহনবাগানের সংযুক্তিকরণের পর পড়শি ক্লাবকে আগেই অভিনন্দন জানিয়েছেন ইস্টবেঙ্গলের অন্যতম শীর্ষ কর্তা দেবব্রত সরকার। তবে বাগানকে অভিনন্দন জানালেও এটিকে’র জন্য কটাক্ষ ছুঁড়ে দিয়েছেন তিনি। দেবব্রত সরকার জানিয়েছেন, ‘মোহনবাগানকে অভিনন্দন জানানোর ভাষা নেই। কোনও সংস্থার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধতে গেলে যে কোনও দলকে শেয়ার ছাড়তেই হবে। সেক্ষেত্রে মোহনবাগানের বিষয়টি যুক্তিসঙ্গত। তবে দেখার বিষয় ছিল, ক্লাবের ঐতিহ্য তাঁরা ধরে রাখতে পারে কীনা। সেই ঐতিহ্যকেও সঙ্গে নিয়ে তাঁরা আগামীদিনে পথ চলবে। তাঁদের কর্মযজ্ঞকে সাধুবাদ না জানিয়ে উপায় নেই।’

অন্যদিকে এটিকে’র প্রতি কটাক্ষ ছুঁড়ে দেবব্রত বাবু জানিয়েছেন, ‘কলকাতার তিন প্রধানের সঙ্গে জড়িয়ে আছে কোটি কোটি মানুষের আবেগ। একশো বছরেরও বেশি সময় ধরে তিন প্রধানকে বয়ে এনেছেন বহু কর্তা। তাঁদের পরিশ্রম, নিষ্ঠা, সততা কখনও ব্যর্থ হতে পারে না। তাই এটিকে, রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা যারাই এই তিন প্রধানের সঙ্গে যুক্ত হোক না কেন, তাঁদের নাম মুছে যাবে।’

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।