ছবি: সংগৃহীত

কলকাতা: মজিদ বাসকর থেকে মাইক ওকোরো। লাল-হলুদে সোনালি অধ্যায় কাটিয়ে যাওয়া অতীতের দিকপালদের শতবর্ষের অনুষ্ঠানে নিয়ে আসার চূড়ান্ত মহড়া চলছে ক্লাবে। শতবর্ষের প্রারম্ভিক অনুষ্ঠান হিসেবে ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ২৮ জুলাই সকাল সাড়ে ন’টায় এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শুরু হবে কুমোরটুলি পার্ক থেকে। সেই নিয়েও শহরজুড়ে চূড়ান্ত প্রস্তুতি তুঙ্গে।

সকল কর্মযজ্ঞের প্রস্তুতির মাঝেই শনিবার সন্ধ্যায় ইস্টবেঙ্গল ক্লাব তাঁবুতে উন্মোচন হয়ে গেল ক্লাবের নতুন জার্সি। শতবর্ষের আবহে নতুন মরশুমে লাল-হলুদ জার্সিতেও শতবর্ষের ছোঁয়া। তবে ১৯২০ প্রতিষ্ঠার বছরে ক্লাবের জার্সি খুঁজে পাওয়া সম্ভব হয়নি। তাই ১৯২৫-২৬ মরশুমের জার্সির অনুকরণে তৈরি হয়েছে ইস্টবেঙ্গলের নতুন মরশুমের জার্সি। উল্লেখ্য, ১৯২৫ প্রথমবার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহনবাগানের বিরুদ্ধে সরকারিভাবে প্রথম ম্যাচটি খেলেছিল ইস্টবেঙ্গল। যে ম্যাচে নেপাল চক্রবর্তীর একমাত্র গোলে মোহনবাগানকে পরাস্ত করেছিল পদ্মাপাড়ের ক্লাব।

আরও পড়ুন: ওভার-থ্রো ইস্যুতে মুখ খুলে ধর্মসেনাকেই সমর্থন আইসিসি’র

ক্লাবের তরফ থেকে ওই ম্যাচের গোলদাতা নেপাল চক্রবর্তীর পরিবারের থেকে সংরক্ষিত জার্সি চেয়ে নেওয়া হয়। এরপর ওই মরশুমে জার্সির অনুকরণেই তৈরি করা হয়েছে লাল-হলুদের নতুন মরশুমের জার্সি। জার্সিতে থাকছে অফিসিয়াল সেন্টিনারি লোগোও। এদিন ক্লাব তাঁবুতে জার্সি উন্মোচন নতুন মরশুমে ক্লাবের হোম জার্সি পরে আত্মপ্রকাশ করেন পড়শি ক্লাব থেকে নতুন মরশুমে ক্লাবে নাম লেখানো জঙ্গলমহলের পিন্টু মাহাতো। অন্যদিকে অ্যাওয়ে জার্সিতে আত্মপ্রকাশ করেন লেফট-ব্যাক সামাদ আলি মল্লিক। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সচিব কল্যাণ মজুমদার, দেবব্রত সরকাররা। কিট স্পনসর কাইজেন স্পোর্টসের সঙ্গে আলোচনা করেই চূড়ান্ত হয়েছে ক্লাবের নয়া জার্সির ডিজাইন।

আরও পড়ুন: জন্মদিনে বাগান সমর্থকদের জন্য আবেগঘন বার্তা সনির

অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠা দিবস অর্থাৎ ১ অগাস্ট প্রথা মেনে ক্লাবের মাঠে দলের অনুশীলনের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, এব্যাপারে তিনি ইনভেস্টর গ্রুপের সঙ্গে কথা বলেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে কেবল কোয়েস গ্রুপের চেয়ারম্যান অজিত আইজ্যাকই নন, পাশাপাশি পূর্বতন স্পনসরদেরও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বলে জানান দেবব্রত সরকার।

আগামী ৩ অগাস্ট আর্মি রেড ফুটবল টিমের বিরুদ্ধে ডুরান্ড ম্যাচ দিয়ে মরশুম শুরু করছে ইস্টবেঙ্গল। ঐতিহ্যশালী এই টুর্নামেন্টে গ্রুপ-এ’তে লাল-হলুদের বাকি দুই প্রতিপক্ষ বেঙ্গালুরু এফসি ও জামশেদপুর এফসি।