সুভীক কুন্ডু, কলকাতা: ঠাঁই ঠাঁই ঠাঁই ঠাঁই…৷ ডার্বিতে গোল করে ফেন্সিং পেড়িয়ে গ্যালারির দিকে এসে এভাবেই চলল জবির ‘মেশিন গান’৷ যা দেখে মুহূর্তে গ্যালারির খুদে সমর্থকদের গলায় একটাই স্লোগান৷ ‘গোলমেশিনের হাতে এবার নয়া মেশিন গান!’ আট গোল করে জবি এখন আই লিগের গোলমেশিন, আর তাঁর সেলিব্রেশনে এখন শুধুই মেশিনগান৷ মরশুমের শেষ ডার্বিতে জটায়ু লালমোহন গাঙ্গুলি চোখ রেখেছিলেন কিনা জানা নেই, ওমন গোল সেলিব্রেশন দেখলে তিনি তাঁর ট্রেডমার্ক কায়দায় নিশ্চয় বলতেন, ‘ছ’টা গুলি ঠাঁই ঠাঁই ঠাঁই ঠাইঁ ঠাঁই ঠাই…’

আরও পড়ুন- সনি-খালিদের ‘দুঃস্বপ্ন’, ডার্বি শুধুই জাস্টিনময়…রইল ডার্বির পাঁচ দিক

শুধু জবি কেন, গোটা দলেরই সেলিব্রেশনে এখন মেশিনগান স্টাইল যেন মাস্ট৷ জবি-ডিকা, রক্ষিত সবার হাতে যেন এক একটা মেশিনগান ধরিয়ে দিয়েছেন কোচ৷ উল্লাসের সময় ক্যামেরা তাঁদের দিকে তাক করলেই  সটাং পজিশন নিয়ে গুলি চালাতে ভালোবাসেন ওরা৷ তবে কী পুরোটাই বাগানের হাইতিয়ান ম্যাজিশিয়ন সনিকে সুযোগ পেলে ফিরিয়ে দেওয়া! সেই শিড়িগুড়ি, সেই স্টেইনগান৷ লাল-হলুদের অন্দরমহলে কি সনির স্টেইনগানের ভিডিও দেখেই দলকে চাঙ্গা করান আলেজান্দ্রো৷

আরও পড়ুন- সনির মঞ্চে নায়ক জবি, ময়দানে শুরু অন্য মিথের গল্প

স্প্যানিশ কোচের কাছে প্রশ্ন পৌঁছে না গেলেও জবির কাছে পৌঁছেছিল৷ ডার্বি জিতে যুবভারতীর কনফারেন্স রুমে সেই প্রশ্নেরই উত্তর দিয়ে গেলেন লাল-হলুদের জাস্টিন৷

কী বললেন উত্তরে? জবির সাফ উত্তর, ‘নকলও নয় পাল্টা দেওয়াও নয়৷ এটা সনির স্টেইনগানই নয়৷’ বলেই পরমুহূর্তে যোগ করলেন, সেলিব্রেশেনের এই স্টাইলের সবটুকুই তাঁর নিজেস্ব স্টাইল৷ ওখানে কারুর কপিরাইট জবির না-পসন্দ৷ বুদ্ধিমানদের কিন্তু বুঝে নিতে অসুবিধে হওয়ার কথা নয়, সেলিব্রেশন স্টাইল টুকুতেও সনির ছায়া চান না জবি৷ ঘুরিয়ে বললে স্পটলাইটে থাকার দিনে সেলিব্রেশনে সনির তুলনা টেনে আলোর ভগ্নাংশটুকুও দিতে নারাজ ময়দানের ‘নতুন বাজিরাও’!

আরও পড়ুন-জোড়া গোলে ফিরতি ডার্বি জয় লাল-হলুদের