কল্যাণী: কোচ বদলে ভাগ্য বদল হল না পদ্মাপাড়ের ক্লাবের৷ ঘরের মাঠে ফের হারল ইস্টবেঙ্গল৷ প্রতিপক্ষ এবার আইজল এফসি৷ শতবর্ষে দাঁড়িয়ে ক্রমাগত হারতে থাকা লাল-হলুদে অবনমনের ভ্রুকুটি৷

এ কোন ইস্টবেঙ্গল? আহত সিংহের মতো যে দল অতীতে গর্জে উঠে ঘুরে দাঁড়িয়েছে সেই দল হারতে হারতে কিনা খাদের কিনারায়! ইন্ডিয়ান অ্যারোজের পর ঘরের মাঠে আইজল এফসি-র বিরুদ্ধে হার হমজ করল ইস্টবেঙ্গল। পরপর দুই ম্যাচেই মাথা নত হল লাল-হলুদ সমর্থকদের। ক্রমাগত হারের ফলে চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াই থেকে ছিটকে যাওয়ার পাশাপাশি এবার অবনমন আতঙ্ক তাড়া করে বেড়াচ্ছে পদ্মাপাড়ের ক্লাবকে৷ এদিনের হারের পর ১০ ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের পয়েন্ট ১১৷ নীচে নামতে নামতে আট নম্বরে এসে পৌঁছেছে লাল-হলুদ৷ আর সমসংখ্যক ম্যাচ খেলে ২৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থানে রয়েছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহনবাগান৷

আগের ম্যাচে অ্যারোজের মতো দুর্বল প্রতিপক্ষের কাছে হারায় এদিন প্রথম একাদশে পাঁচটি পরিবর্তন করেছিলেন লাল-হলুদের নতুন স্প্যানিশ কোচ মারিও রিভেইরা৷ কিন্তু কাজের কাজ হয়নি৷ ম্যাচের প্রথমার্ধের বল দখলে এগিয়ে থেকেও আইজল এফসি-র জালে বল জড়াতে পারেনি৷ দ্বিতীয়ার্ধেরও ম্যাচে দাগ কাটতে ব্যর্থ লাল-হলুদ ফুটবলারারা৷ কিন্তু ৭৬ মিনিটে সুপার-সাব হিসেবে নেমে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেন আইজল এফসি-র আর্জেন্তাইন স্ট্রাইকার ভেরন।

২০১৭ আইজল এফসি-র কাছে ০-১ গোলে পরাস্ত হয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। তারপর চারবারের সাক্ষাতে প্রতিবারই অপরাজিত ছিল লাল-হলুদ। কিন্তু চলতি আই লিগে ফিরল সেই বছর তিনেক আগের স্মৃতি। লিগ তালিকার উপরের দিকে উঠে আসতে প্রতিটি পয়েন্ট যখন গুরুত্বপূর্ণ কোলাডোদের, তখনই বারবার ব্যর্থ হচ্ছেন তাঁরা।
আগের ম্যাচে লাল-কার্ড দেখায় এদিন খেলতে পারেননি মার্কোস। তাই ক্রোমাকে রেখেই দল সাজিয়েছিলেন কোচ মারিও। কিন্তু শুরুতেই চোট পান প্রাক্তন মোহনবাগানি। পরে অবশ্য ঘুরে দাঁড়িয়ে গোলের চেষ্টাও করেছিলেন। কিন্তু ব্যর্থ হন। সারা ম্যাচে আইজলের ডিফেন্স চিড়তেই পারলেন না কোলাডোরা। সেটপিসকেও ঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলেন না। উলটে দ্বিতীয়ার্ধে উইলিয়ামের ক্রস থেকে ডান পায়ের জোড়ালো শটে গোল করে ইস্টবেঙ্গলকে আরও কোণঠাসা করে দিলেন ভেরন।

১৩ ফেব্রুয়ারি যুবভারতী পাওয়া যাবে না। অর্থাৎ লাল-হলুদকে মিনার্ভা ম‍্যাচও খেলতে হবে কল্যাণীতে। ফলে ঘরের মাঠে হারের হ্যাটট্রিকের ভ্রুকুটি থাকছে ইস্টবেঙ্গলের৷ লাল-হলুদের অবনমনের আশঙ্কার মধ্যে জোরাল হচ্ছে সবুজ-মেরুনের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আশা৷