কলকাতা: ডুরান্ডের প্রথম দু’ম্যাচ জিতে মরশুম শুরু করলেও কলকাতা লিগের প্রথম ম্যাচেই হেরে গেল শতবর্ষের ইস্টবেঙ্গল৷ লিগের প্রথম ম্যাচ হেরে বেশ অস্বস্তিতে লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচ আলেজান্দ্রো মেনেন্দেজ। শুক্রবার ঘরের মাঠে জর্জ টেলিগ্রাফের কাচে ০-১ গোলে হার হজম করে লাল-হলুদ৷

লিগে ময়দানের দুই চিরশত্রু ক্লাবের এ যেন দারুণ মিল! মোহনবাগানও ডুরান্ডে জয় দিয়ে মরশুম শুরু করলেও কলকাতা লিগের প্রথম ম্যাচ হারে৷ পরশি ক্লাব ইস্টবেঙ্গলের চিত্রনাট্যও এক। এদিন জর্জের কাছে শেষ মুহূর্তে জাস্টিনের গোলে হার হজম করে লাল-হলুদ৷ প্রথমার্ধে ম্যাড়ম্যাড় ফুটবলের পর দ্বিতীয়ার্ধে গোল করতে মরিয়া ছিল দুই দলই৷ কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধেও গোলের মুখ খুলতে পারেনি কোনও দলই৷ কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের অতিরিক্ত সময় গোল করে জর্জকে জেতান জাস্টিস মর্গান। এই ম্যাচ জিতে কলকাতা লিগে এক নম্বরে চলে গেল জর্জ টেলিগ্রাফ।

জর্জ কোচ রঞ্জন ভট্টাচার্য অভিজ্ঞতা এদিন টেক্কা দেয় লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচকে৷ বিদেশিরা কলকাতা লিগে পার্থক্য তৈরি করেন, এটা ভালো করেই জানতে জর্জ কোচ রঞ্জন৷ স্বাভাবিকভাবেই ইস্টবেঙ্গলের থেকে এদিন মাঠে নামার আগেই এগিয়ে ছিল তাঁর দল। কারণ আইনি জটিলতায় তিন বিদেশি স্যান্টোস কোলাদো, কাশিম আইদারা এবং বোরখা গোমেসকে ছাড়ায় দল নামাতে হয় ইস্টবেঙ্গলকে। বৃহস্পতিবার সই করা ক্রেসপে এদিন খেললেও ছাপ ফেলতে পারেননি৷

প্রথমার্ধে দুই দলই রক্ষণাত্মক খেলে। তবে ম্যাচ শুরুর ৪ মিনিটে দারুণ সুযোগ নষ্ট করে বিদ্যাসাগর সিং৷ গোলপোস্টের বাইরে শট মেরে সুযোগ হাতছাড়া করেন তিনি। তবে ম্যাচের সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন লাল-হলুদের শুভনীল। ৪১ মিনিটে অভিজিৎ পেনাল্টি বক্সেই ছোট ক্রস দেন ফাঁকায় দাড়ানো শুভনীলকে। কিন্তু শুভনীল সেই শট তেকাঠিতে রাখতে পারেননি।

দ্বিতীয়ার্ধে দলে অনেক বদল করেন আলেজান্দ্রো। ৫২ মিনিটে অভিজিতের বদলে পিন্টু এবং প্রকাশের বদলে রোলম পুঁইয়াকে নামান লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচ। ৫৭ মিনিটে শুভনীলকে তুলে ব্রেন্ডনকে নামিয়ে আরও একটি বদল করে। কিন্তু লাভের লাভ হয়নি৷ উলটে ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে গোজ হজম করে মাঠ ছাড়ে আলেজান্দ্রোর ছেলেরা৷