কলকাতা: হাতে আর মাত্র পাঁচ দিন। তারপরেই আইএসএলের মঞ্চে কলকাতা ডার্বি দিয়ে অভিযান শুরু করবে এসসি ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু সদস্য-সমর্থকদের স্বার্থরক্ষার বিষয়টিতে লগ্নিকারী সংস্থার সঙ্গে এখনও ডেফিনিটিভ এগ্রিমেন্টে সই করেননি ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের কথায় চুক্তিপত্রে কয়েকটি ক্ষেত্রে সমর্থকদের স্বার্থরক্ষার বিষয়টি লঙ্ঘিত হয়েছে। তাই চুক্তিপত্রে সদস্য-সমর্থকদের স্বার্থরক্ষার বিষয়টি কিছুটা পরিবর্তিত হয়ে সই হওয়ার অপেক্ষায়।

কিন্তু এরইমধ্যে এগিয়ে আসছে ২৭ নভেম্বর। তাই সদস্য-সমর্থকদের কথা ভেবে আইএসএলে অভিযান শুরুর ম্যাচটি ক্লাবের মাঠে দেখানোর উদ্যোগ গ্রহণ করলেন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। শনিবার ক্লাবে একটি কর্মসমিতির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানেই করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগামী শুক্রবার ক্লাবের মাঠে জায়ান্ট স্ক্রিনে খেলা দেখানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে এবিষয়ে প্রয়োজনীয় অনুমতি জোগাড় করা হবে বলে জানানো হয়েছে ক্লাবের পক্ষ থেকে।

অনুমতি পেলেই প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাবের মাঠে গ্যালারিতে বসে জায়ান্ট স্ক্রিনে যাতে সমর্থকেরা ডার্বি উপভোগ করতে পারেন সে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে রবিবার সকালে এসসি ইস্টবেঙ্গলের অফিসিয়াল সোশ্যাল মিডিয়া পেজগুলোতে একটি পোস্ট করে সমর্থকদের মধ্যে ডার্বির উত্তাপ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। কেরালা ব্লাস্টার্সকে হারিয়ে জয় দিয়েই অভিযান শুরু করেছে এটিকে-মোহনবাগান। চির-প্রতিদ্বন্দ্বীদের প্রথম খেলায় নজর রেখেছিলেন রবি ফাওলার। সেখানে থেকেই হাবাসের দলের ফাঁকফোকর খুঁজে নোটবুকে তুলে রেখেছেন লিভারপুল কিংবদন্তি।

আর রবিবার সকালে জেজে লালপেখলুয়ার ছবি পোস্ট করে ক্লাবের অফিসিয়াল পেজ থেকে ডার্বি তথা আইএসএলের প্রথম ম্যাচের কাউন্টডাউন শুরু করে দেওয়া হল। ছবিতে ক্যাপশন হিসেবে লেখা হয়েছে, ‘২৭ নভেম্বর- তারিখটা মার্ক করে রাখুন। বহু প্রতীক্ষিত কলকাতা ডার্বি এবং আমাদের আইএসএল অভিষেক হতে আর মাত্র পাঁচ দিন বাকি।’

এদিকে হাঁটুর চোটে সম্ভবত কলকাতা ডার্বি খেলা হচ্ছে না এটিকে-মোহনবাগানের লেফট উইং-ব্যাক মাইকেল সুসাইরাজের। রবিবার সকালে সুসাইরাজের হাঁটুতে এমআরআই করা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরেই চোটের গভীরতা জানা যাবে। তবে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে এসিএল ইনজুরি না হলেও একমাস মাঠের বাইরে থাকতে হতে পারে সবুজ-মেরুন ফুটবলারটিকে।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।