কলকাতা: ১ গোলে পিছিয়ে থেকেও ডুরান্ড কাপে দুরন্ত জয় ইস্টবেঙ্গলের৷ যুবভারতীতে বেঙ্গালুরু এফসিকে ২-১ গোলে হারিয়ে টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে পৌঁছে গেল লাল-হলুদ বাহিনী৷ সৌজন্যে বিদ্যাসাগর সিংয়ের জোড়া গোল৷

‘এ’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আর্মি রেড দলকে ২-০ গোলে হারিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল৷ দ্বিতীয় ম্যাচে জামসেদপুরকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দেয় লাল-হলুদ শিবির৷ এবার গ্রুপের তৃতীয় তথা শেষ ম্যাচে বেঙ্গালুরুতে পরাস্ত করল আলেজান্দ্রো মেনেন্দেজের প্রশিক্ষণাধীন ইস্টবেঙ্গল দল৷ ফলে তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিশ্চিত করে তারা৷ যদিও গ্রুপের শেষ ম্যাচে বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে ড্র করলেই শেষ চারের টিকিট পকেটে পুরত ইস্টবেঙ্গল৷

আরও পড়ুন: ইস্টবেঙ্গল দিবসে আত্মপ্রকাশ অরিজিতের কন্ঠে নয়া থিম সং

কলকাতা ফুটবল লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জর্জ টেলিগ্রাফের বিরুদ্ধে হতাশাজনক হারের পর আলেজান্দ্রো ডুরান্ডের এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে পূর্ণশক্তির দল মাঠে নামান৷ তা সত্ত্বেও প্রথমার্ধে গোল খেয়ে পিছিয়ে পড়তে হয় ইস্টবেঙ্গলকে৷ তবে দ্বিতীয়ার্ধে জোড়া গোল করে শর্তবর্ষিকীর উৎসবে থাকা ক্লাবকে একরাশ উচ্ছ্বাস উপহার দেন বিদ্যাসাগর৷

ম্যাচের ১৭ মিনিটে অজয় ছেত্রী গোল করে এগিয়ে দেন বেঙ্গালুরুকে৷ বক্সের ভিতর থেকে এডমুন্ড লালরিনডিকার শট ইস্টবেঙ্গলের ক্রসবারে লেগে প্রতিহত হলে ফিরতি বল জালে ঠেলে দেন অজয় ছেত্রী৷ বিরতিতে ম্যাচের স্কোরলাইন ছিল বেঙ্গালুরুর অনুকূলে ১-০৷

আরও পড়ুন: লিগের দ্বিতীয় ম্যাচেও জয় পেল না মোহনবাগান

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আলেজান্দ্রো হাওকিপের জায়গায় মাঠে নামা বিদ্যাসাগরকে৷ কোচের এই চালেই বাজি মাৎ করে ইস্টবেঙ্গল৷ ৫৯ মিনিটে ব্রেন্ডনের বাড়ানো বল বেঙ্গালুরুর জালে জড়িয়ে ইস্টবেঙ্গলকে ১-১ সমতায় ফেরান বিদ্যাসাগর৷ ৭৩ মিনিটে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় তথা দলের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন বিদ্যাসাগর৷ ম্যাচের চূড়ান্ত স্কোর-লাইন দাঁড়ায় ইস্টবেঙ্গলের পক্ষে ২-১৷ এই নিয়ে টুর্নামেন্টে মোট পাঁচটি গোল করলেন বিদ্যাসাগর৷