মস্কো: একদিকে বিশ্ব জুড়ে করোনা আতঙ্ক। তারই মধ্যে জোরালো ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল রাশিয়া। রিখটার স্কেলে যার মাত্রা ছিল ৭.৮। রাশিয়ার কুরিল দ্বীপপুঞ্জে বুধবার এই জোরালো ভূমিকম্প অনুভূত হয়।
মার্কিন সংস্থান ইউএসজিএস জানিয়েছে, ভূমিকম্পের পর সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

জাপানি শহর সাপ্পোরো থেকে ১ হাজার ৪০০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে ৫৯ কিলোমিটার গভীরতায় ভূমিকম্পটি হয়েছে। দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় সুনামি সতর্কতা কেন্দ্র বলছে, ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল এক হাজার কিলোমিটারের মধ্যে সুনামি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

সংস্থাটি বলছে, এর আগে রাশিয়ায় এই মাত্রার ভূমিকম্পের ফলে ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল থেকে অনেক দূরে সুনামি হয়েছিল। তারা ওই ঘটনা বিশ্লেষণ করে সতর্কতার মাত্রা নির্ধারণ করছে।

এর আগেও এরকম বড়সড় ভূমিকম্প হয় রাশিয়ার এই দ্বীপে। ২০১৮ তে বড়সড় মাত্রা ভূমিকম্প কেঁপে উঠেছিল রাশিয়া। রাশিয়ার কুরলি আইল্যান্ডের ২৮২ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে এই ভূমিকম্প হয়েছিল। রিখটার স্কেল কম্পনের মাত্রা ছিল ৬.৭।

দু’দিন আগেই ইউরোপে আঘাত হানে ভূমিকম্প। রিখটার স্কেলে মাত্রা ছিল ৫.৪। ক্রোয়েশিয়ায় হয় সেই কম্পন। তবে শুধু ক্রোয়েশিয়া না, সঙ্গে কেঁপে উঠল বসনিয়া অ্যান্ড হার্জেগোভিনা, হাঙ্গেরি, অস্ট্রিয়া এবং স্লোভেনিয়ার বেশ কিছু দেশ।

এ ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল ক্রোয়েশিয়ার রাজধানী জাগরেব থেকে ৫.৮ মাইল উত্তরে। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে এই ভূ-কম্প অনুভূত হয়। এ ভূকম্পনের ফলে ক্রোয়েশিয়ার বেশ কিছু স্থানে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ক্রোয়েশিয়ার বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। একই সাথে কিছু এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের খবরও শোনা যায়।