ম্যানিলা: ফের ভয়াবহ ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল ফিলিপিন্স। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় রাতে কেঁপে ওঠে ফিলিপিন্স।

সমুদ্রপৃষ্ঠের ৯৫.৮ কিলোমিটার নীচে এই ভূমিকম্পের উৎসস্থল। ইউএস জিওলজিক্যাল সার্ভের রিপোর্ট অনুযায়ী, দাভাও অক্সিডেন্টাল প্রভিন্সের দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত এই উৎস।

এলাকার নিকটবর্তী অঞ্চলে এদিন তীব্র কম্পন অনুভূত হয়েছে। তবে হতাহতের কোনও খবর এখনও পর্যন্ত নেই। সুনামি ওয়ার্নিং সিস্টেম অনুযায়ী, কোনও সুনামির সম্ভাবনা নেই।

তবে বেশ কিছু অঞ্চল বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছে।

এর ঠিক আগে মিন্দানাওয়ে অর্থাৎ গত বছরের ১৬ অক্টোবর ৬ দশমিক ৩ মাত্রার ও ২৯ অক্টোবর ৬ দশমিক ৬ মাত্রার দুটি ভূমিকম্প হয়। ওই দুই ভূমিকম্পে ইতোমধ্যে ওই অঞ্চলের অনেক ভবন ও বাড়ি ভেঙে পড়েছিল। সেগুলি ঠিক করতে না করতেই ফের কম্পন অনুভূত হয়। আর তাতেই বিপদ বাড়ে বলে জানাচ্ছেন সে দেশের আধিকারিকরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।