নিউজ ডেস্ক: ফের কেঁপে উঠল আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ।

মঙ্গলবার ভোরের দিকে ভারতের কেন্দ্রশাসিত ওই এলাকায় কম্পন অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে ওই কম্পনের তীব্রতা ছিল ৪.৯।

সংবাদ সংস্থা এএনআই জানাচ্ছে যে মঙ্গলবার ভোর চারটের কিছু সময় আগে আন্দামানে ভূমিকম্প হয়। স্থানীয়দের মতে সময়টি ছিল ভোর তিনটে বেজে ৪৯ মিনিট।

সোমবারেই ভয়াবহ কম্পন অনুভূত হয়েছিল ইন্দোনেশিয়াতে। ওই দিন দুপুরে ৬.২ মাত্রার কম্পনে দুলে উঠল এই দ্বীপ৷ পূর্ব ইন্দোনেশিয়ায় ছিল এই কম্পনের উৎস৷ তবে ক্ষয়ক্ষতি বা প্রাণহানির কোনও খবর মেলেনি৷

টিমোর দ্বীপের কুপাং শহরের ১৩৩ কিমি উত্তর পশ্চিমে ছিল এই কম্পনের উৎসস্থল৷ ইউরোপিয়ান-মেডিটেরিয়ান সিসমোলজিক্যাল সেন্টার জানায় এই তথ্য৷

এর আগে, শনিবার গভীর রাতে তীব্র মাত্রার ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে নিউজিল্যান্ড৷ যার জেরে সেখানে সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়৷ খবরে প্রকাশ শনিবার গভীর রাতে নিউজিল্যান্ডের কেরমাডেক দ্বীপপুঞ্জের মাটি দুলে ওঠে৷ পরে জানা যায় কম্পনের মাত্রা ছিল ৭.২৷

কম্পনের উৎসস্থল এতটাই গভীরে যে ওই দ্বীপপুঞ্জে সুনামি সতর্কতা জারি হয়৷ প্যাসিফিক সুনামি ওর্য়ানিং সেন্টার জানায়, কম্পনের উৎসস্থল ছিল ১০০ কিমি গভীরে৷ ফলে ৩০০ কিমি পরিধির মধ্যে সুনামি হতে পারে৷ এই ৩০০ কিমির মধ্যে পড়ছে নিউজিল্যান্ড, আমেরিকা সামোয়া, সামোয়া, কুক আইল্যান্ড, টোগা, ফিজি, সলোমন আইল্যান্ড ইত্যাদি৷

এদিকে কম্পনের পর নিউজিল্যান্ড থেকে এখনও অবধি কোনও হতাহতের খবর নেই৷ নেই কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর৷ তবে সুনামি সতর্কতা জারির পর প্রশাসনের তরফে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া শুরু হয়৷ উপকূল এলাকা থেকে সবাইকে দুরে নিরাপদ স্থানে চলে যাওয়ার বার্তা দেওয়া হয়৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.