ওয়াশিংটন:  বিশ্বজুড়ে চলছে করোনাভাইরাসের তাণ্ডব। একের পর এক দেশে ছড়িয়ে পড়ছে মারণ এই ভাইরাস। এই পরিস্থিতিতে সামনে আসল চাঞ্চল্যকর তথ্য। ভয়ঙ্কর এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যখন সারা পৃথিবীর মানুষ খাবি খাচ্ছে তখন মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা সামনে আনল চাঞ্চল্যকর তথ্য। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছে, পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে ধেয়ে যাবে বিপজ্জনক এক গ্রহাণু। আগামী ২৯ এপ্রিল একেবারে পৃথিবীর কক্ষপথের কাছ থেকে প্রবাহিত হয়ে যাবে একটি শক্তিশালী গ্রহাণুর। নাসার পক্ষ থেকে এই গ্রহাণুটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘Asteroid 52768’.

যদিও এ গ্রহাণুটি সরাসরি পৃথিবীর ওপর কোনও ধরনের আঘাত হানার শঙ্কা নেই। ফলে পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে বলে অনেক ক্ষেত্রে বলা হলেও তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। তথ্য বলছে, পৃথিবীর কক্ষপথের থেকে ৩.৯ লক্ষ মাইলের অভ্যন্তরে এই গ্রহাণুটি আসবে না। কিন্তু এই গ্রহাণুটির বিশাল আকৃতির জন্য কিছুটা হলেও শঙ্কা থেকে যায়।

আনুমানিক ১.১ থেকে ২.৫ মাইল ব্যাস বিশিষ্ট এই গ্রহাণুটি ঘণ্টায় বিশ হাজার মাইল বেগে পৃথিবীর কক্ষপথের কাছ দিয়ে ধেয়ে যাবে। যার প্রভাবে পৃথিবীর চৌম্বকক্ষেত্রে একটি পরিবর্তন আসতে পারে বলে কোনও কোনও বিজ্ঞানী মনে করছেন।

একই সঙ্গে পৃথিবীর কিছু জায়গা সাময়িক সময়ের জন্য সূর্যের আলো থেকে বঞ্চিত হতে পারে বলে মনে করছেন কেউ কেউ। যদিও নাসার পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত সরাসরি এই বিষয়ে নিশ্চিত করে কোনও কিছু বলা হয়নি। সম্পূর্ণটাই মনে করার উপর রয়েছে। তবে সবাইকে সাবধান থাকার কথা বলা হচ্ছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।