নয়াদিল্লি: দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নির্বাচনে জয়ী হল রাষ্ট্রীয় সেবক সংঘ বা আরএসএস প্রভাবিত ছাত্র সংগঠন এবিভিপি। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাচনে চারটির মধ্যে তিনটে আসনে জয় লাভ করেছে এবিভিপি এবং একটিতে জয়ী হয়েছে কংগ্রেস প্রভাবিত এনএসইউআই।

জয়লাভ করার পরে সমর্থকেরা ঢোল এবং গোলাপের পাপড়ি দিয়ে জয়ী প্রার্থীদের সম্মান জানায়।

সভাপতি পদে জয় লাভ করেছেন অসিত দাহিয়া। সহ-সভাপতি পদে জিতেছেন প্রদীপ তানওয়ার এবং সহ-সচিব পদে জয় লাভ করেছেন শিবাঙ্গী খারওয়াল। তবে সচিব পদ গিয়েছে আশিষ লাম্বার দখলে। যিনি একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী এবিভিপির যোগী রথিকে ২০৫৩ ভোটে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছেন৷ বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর, শুক্রবার সকাল ৮টা ৩০ মিনিটের অনেক পর থেকে ভোট গণনা শুরু হয়৷ ভোট বাক্স খুলতেই দেখা যায় এবিভিপির জয়জয়কার৷

বৃহস্পতিবার এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় ছাত্র সংসদের নির্বাচন৷ মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক অশোক প্রসাদ জানান, উত্তর-পূর্ব দিল্লির কিংসওয়ে ক্যাম্পের পুলিশ লাইনে এই নির্বাচন হয়। এবারের নির্বাচনের জন্য ৫২টি পোলিং স্টেশন তৈরি করা হয়েছিল৷ এবারে ৩৯.৯০ শতাংশ পড়ুয়া নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। ২০১৮-র নির্বাচনে যেখানে শতকরা হার ছিল ৪৪.৪৬ শতাংশ৷

এবারের নির্বাচনে অংশ নিয়েছিল ১.৩ লক্ষ ছাত্রছাত্রী। ১৪৪ টি ইভিএম মেশিন ব্যবহার করা হয়েছিল ছাত্রদের ইউনিয়ন পোলের জন্য এবং ১৩৭ টি ইভিএম ব্যবহার করা হয়েছিল কলেজ ইউনিয়ন পোলের জন্য। পোলিং শুরু হয়েছিল সকাল সাড়ে নটা থেকে এবং শেষ হয়েছিল দুপুর একটা নাগাদ। সান্ধ্য কলেজে পোলিং শুরু হয়েছিল দুপুর তিনটে থেকে এবং শেষ হয়েছিল সাড়ে সাতটা নাগাদ।