রায়গঞ্জ: কাঁপুনি ধরাচ্ছে মারণ করোনা। তাই গুডফ্রাইডেতেও বন্ধ চার্চ। খ্রিষ্টানদের পবিত্র উৎসব গুডফ্রাইডের দিন তালা বন্ধ উত্তর দিনাজপুরের গির্জাগুলি। করোনার সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে না পরে সেই লক্ষ্যেই ঘরে বসে প্রভু যীশুকে স্মরণের বার্তা ফাদারদের।

এবারের সবেবরাতও কেটেছে অন্য মেজাজে। বাড়িতে বসেই নমাজ পাঠ করেন ধর্মপ্রাণ মুসলিম সমাজ। আগেই মসজিদের ইমামরা সেই নিদান দিয়েছিলেন নামাজিদের উদ্দেশ্যে। ভিড় বা জমায়েত থেকেই ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে করোনার। সেই কারণেই বর্তমান পরিস্থিতিতে সব ধরনের জমায়েত নিষিদ্ধ রয়েছে গোটা দেশে। ধর্মগুরুরাও ঘরে থেকেই ধর্ম পালনের বার্তা দিচ্ছেন।

উত্তর দিনাজপুরে গুডফ্রাইডের প্রার্থনার ব্যবস্থা ভিডিও কলিংয়ে। বাড়ি বসেই প্রভু যীশুকে স্মরণ। জেলার প্রিটি চার্চের ফাদারদের নিদান মেনে প্রত্যেকেই একই উদ্যোগ নেন। লকডাউনের কারণে স্বাভাবিকভাবেই গির্জাগুলিতে সমবেত প্রার্থনা বন্ধ রয়েছে। রায়গঞ্জের ছটপড়ুয়ার গির্জার ফাদার ফেফিয়ান জানালেন, বাড়িতে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বা ইউটিউবের মাধ্যমে এবার যীশুকে স্মরণ করতে হবে।

রায়গঞ্জের পাশাপাশি চোপড়া, আলতাপুর, করণদিঘি, কানকি, ভাটোল এলাকাতেও একই ভাবে গুডফ্রাইডের অনুষ্ঠান পালন। প্রভু যীশুর কাছে শিষ্যদের প্রার্থনা, দেশ তথা সারা বিশ্বকে করোনামুক্ত করুন তাঁদের ঈশ্বর। করোনায় দেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।

ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৬,৪০০। মৃতের সংখ্যা ১৯৯। যে কোনও মুহূর্তেই ২০০-এর ঘরে গিয়ে উঠতে পারে এই সংখ্যা। স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে খবর, দেশে মোট করোনা আক্রান্ত ৬৪১২ জন। এদের মধ্যে ৫০৩ জনকে ছুটি দেওয়া হয়েছে বা তাঁরা সেরে উঠেছেন। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৯৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও