কলকাতা: অঙ্গদানের ক্ষেত্রে ফের নজির৷ এবার জেলা থেকে ব্রেন ডেথ হওয়া ব্যক্তির অঙ্গ আনা হচ্ছে কলকাতায়৷ দুর্গাপুর থেকে আনা অঙ্গ এসএসকেএমে প্রতিস্থাপিত হবে তিন জন গ্রহীতার শরীরে৷ জেলা থেকে গ্রিন করিডর করে অঙ্গ এনে প্রতিস্থাপন নজির বলে মনে করা হচ্ছে৷

বাঁকুড়ার বছর তেরোর মধুস্মিতা গয়েন ভরচি ছিলেন দুর্গাপুর মিশন হাসপাতালে৷ রবিবার ভোর রাতে তার ব্রেন ডেথ হয়েছে বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা৷ সঙ্গে সঙ্গেই মেয়ের শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ দানের কথা চিকিৎসকদের জানান মধুস্মিতার অভিভাবকরা৷ হাসপাতালের তরফে খবর যায় রিজিওনাল অরগ্যান অ্যান্ড টিস্যু ট্রান্সপ্লান্ট অরগানাইজেশনে৷

আরও পড়ুন: কয়েক কোটির জালিয়াতি আইআইটি ড্রপআউট ছাত্রের

শুরু হয় গ্রহীতার খোঁজ৷ এসএসকেএম হাসপাতালে রোগীদের চিহ্নিতকরণের কাজ চলে জোরকদমে৷ জানা গিয়েছে, মধুস্মিতার দু’টি কিডনি, লিভার ও কর্নিয়া দান করা হবে৷ দুর্গাপুর থেকে কলকাতা ১৭০ কিলোমিটার পথ গ্রীন করিডোর করা হয়েছে৷ সেই পথেই কম সময়ে কলকাতায় আনা হবে অঙ্গ৷ দু’টি কিডনি দু’জনের শরীরে প্রতিস্থাপিত করা হবে৷ প্রতিস্থাপিত হবে লিভারও৷ কর্নিয়া সংরক্ষিত থাকবে শঙ্কর নেত্রালয়ে৷

বিকেলের সাড়ে চারটে নাগাদ দুর্গাপুর থেকে মধুস্মিতার অঙ্গ কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা করা হবে৷ চূড়ান্ত ব্যস্ততা এসএসকেএমে৷ দেশের মধ্যে এত দীর্ঘ গ্রিন করিডর এই প্রথম বলেই জানা গিয়েছে৷ মধুস্মিতার হৃদযন্ত্র দানের কথা প্রাথমিক অবস্থাতে হলেও তা বাস্তবায়িত করা যায়নি৷ আপাতত সবার নজরে মধুস্মিতার অঙ্গ দুর্গাপুর থেকে কলকাতায় এনে সফলভাবে তা অন্যের শরীরে প্রতিস্থাপন৷