সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: জগন্নাথকে সরিয়ে লক্ষ্মী গনেশই যেন বেশি ভরসা দিচ্ছে শহরের পুজো কমিটিগুলিকে। বছর পাঁচেক আগে খুঁটিপুজোর রমরমা শুরু হয়েছে। সেই সময় যে পুজো কমিটিগুলি রথের শুভ দিনে খুঁটি পুজোর করবেন বলে ভাবতেন, তারাই এখন খুঁটিপুজো সারছেন পয়লা বৈশাখের দিন।

গত বছর দুয়েকের মতো এই বছরেও যথারীতি পয়লা বৈশাখের দিনেই খুঁটি পুজো হয়ে গেল বহু ক্লাবের। ক্লাব কর্তারা বলছেন , ‘পয়লাই এখন দুর্গা পুজোয় লড়াই জেতার মঞ্চ।’ বিগত কয়েক বছরের মতো এই বছরেও বেশ কয়েকটি বড় ক্লাব তাদের দুর্গাপুজোর ঢাকে কাঠি দিল এই দিনেই। বেহালা শেষ প্রান্ত থেকে উত্তর কলকাতার পটুয়াপাড়ার বড় বাজেটের ক্লাবসহ আরও অনেক ক্লাব রয়েছে এই তালিকায়। পয়লা বৈশাখের দিনেই খুঁটি পুজো হয়ে গেল তাদের।

খুঁটির এই পুজো ঘিরে শুরু হয়ে গিয়েছে ফেসবুকে প্রচারও। সামনে লোকসভা নির্বাচন তাই নেতা নেত্রীদের না পাওয়া গেলেও প্রাথমিক কাজটা পয়লা বৈশাখেই এগিয়েরাখতে চাইছেন তারা। যেমন ঠাকুরপুকুর এসবি পার্ক , দমদম পার্ক সার্বজনীন , গৌরিবেড়িয়া সার্বজনীন, সঙ্ঘশ্রী, বাঘাযতীন বিবেকানন্দ মিলন সংঘ, কুমোরটুলি সর্বজনীন। টালাপার্ক প্রত্যয়ও তাদের প্রচার শুরু করেছে। খুঁটি পুজো না করলেও ভোটের বাজারে তাদের পুজো প্রচারের অস্ত্র হয়েছে দেওয়াল লিখন।

 

২০১৪ সাল, সেই বছরেও লোকসভা নির্বাচন ছিল। পাঁচ বছর আগে তখনই রমরমা খুঁটি পুজোর শুরু হয়ে গিয়েছে। লড়াই জিততে কোন ক্লাব আগে খুঁটি পুজো করতে পারে সেটাই লক্ষ্য হয়ে উঠেছিল। কাট টু ২০১৯। শুরু হয়ে গিয়েছে লোকসভা নির্বাচন। পাঁচ বছর পেরিয়ে এখন খুঁটিপুজোর রমরমা আরও বেড়েছে।

তবে সময়ের সঙ্গে এই খুঁটি পুজোর দিনক্ষণে পরিবর্তন হয়েছে। হাতে গোনা কয়েকটি পুজো কমিটি পয়লা বৈশাখে খুঁটিপুজো করলেও বেশিরবাগ ক্লাবের কাছে রথই ছিল শুভ দিন। কর্পোরেট ধাঁচের দুর্গাপুজোর লড়াই জিততে শুভ দিন ক্রমে এগিয়ে এসেছে এখন পয়লা বৈশাখেই হয়ে গিয়েছে। লোকসভা নির্বাচনের প্রচারের ব্যনার হোর্ডিংয়ের মাঝেই দেখা যাচ্ছে পুজোর ব্যনারও।

রথযাত্রার দিন সাবেক বাড়ির দুর্গামূর্তির কাঠামোয় পুজো পড়ত। সে দিন থেকেই শুরু হত দিন গোনা। সাবেক পুজো ভেঙে ভেঙে গড়ে উঠেছে বারোয়ারি, সর্বজনীন পুজো। আর সেই কাঠামো পুজোর আঙ্গিকেই গড়ে উঠেছে খুঁটি পুজো। শহরের পুজোকর্তারা বলছেন, খুঁটিপুজোর আমদানি বেহালা থেকে। ওই রথের দিনই খুঁটিপুজো হত আগে, তবে নম নম করে। অনেকটা ইস্টবেঙ্গল, মোহনবাগানের বারপুজোর মতো।

কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে খুঁটিপুজো নিয়ে পুজো কমিটির মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে গিয়েছে। খুঁটি দেবতার মন্ত্র কী? ভূমিতে খোঁড়াখুঁড়ির আগে বাস্তুদেবতাদের পুজো দিতে হয়। বাড়ির যেমন ভিতপুজো, এটাও তেমনি মণ্ডপের ভিতপুজো।