হাওড়া: কিশোরীকে চিকিৎসা না করেই বাড়ি ফিরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল রাজ্যের দু’দুটি সুপার স্পেশালটি হাসপাতালে বিরুদ্ধে৷ সরকারি হাসপাতাল ফিরিয়ে দেওয়ার পর, শেষমেশ মঙ্গলবার রাতে গুরুতর অসুস্থ ওই কিশোরীকে হাওড়ার আন্দুলের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করার পর তার মৃত্যু হয়৷ অর্ণবী রায় (১৩)হাওড়ার আন্দুলের সুভাষপল্লির বাসিন্দা৷

জানা গিয়েছে, গত ৬ দিন ধরে তাঁর শরীর খারাপ হচ্ছিল। শ্বাসকষ্ট, সঙ্গে বমি বমি ভাব, আচমকা খিদে কমে যাওয়াসহ একাধিক সমস্যায় ভুগছিল সে। কলকাতার এসএসকেএম, বাঙ্গুর নিউরোলজি হাসপাতালে দু’দিন যাওয়া হলেও তাকে ভরতি নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। শুধুমাত্র ঘুমের ইনজেকশন ও অল্প কিছু মেডিসিন দিয়ে তাকে ছুটি বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷ বলা হয়, বুধবার সকালে এসে যেন আউটডোরে ডাক্তার দেখিয়ে নেওয়া হয়৷ শেষমেশ রাতেই অবস্থার আরও অবনতি হওয়ায় মঙ্গলবার রাতে তাকে আনা হয় হাওড়ার আন্দুলের ওয়েস্ট ব্যাঙ্ক হাসপাতালে। সেখানেই তার মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ রোগীর পরিবার।

জানা গিয়েছে, হুগলীর আরামবাগে মামার বাড়ি গিয়েই অসুস্থ হয়ে পড়েছিল অর্ণবী৷ এরপর রবিবার ও মঙ্গলবার দু’দিন তাকে হাসপাতাল ভরতি নিতে অস্বীকার করে দু’দুটি সরকারি হাসপাতাল। রবিবার ছিল সাপ্তাহিক ছুটির দিন। আর মঙ্গলবার ছিল ঈদের ছুটি। তাই হাসপাতালে কোনও বড়ো ডাক্তার ছিলনা। মূলত, চিকিৎসকের অভাবেই ছোট্ট অর্ণবীর মৃত্যু হল বলেই অভিযোগ পরিবারের৷