দিল্লি ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের তরফে এবারে কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে।এই মুহূর্তে যেহেতু চাকরি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ মানুষের কাছে আর সেই কারণেই মনে করা হচ্ছে এই কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। জানানো হয়েছে মেডিক্যাল অফিসার পদে নিয়োগের জন্য এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। প্রার্থীদের দ্রুত আবেদনের জন্য জানানো হয়েছে।

দিল্লি ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের তরফে জানানো হয়েছে, আগ্রহী সব প্রার্থীদেরই ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে আবেদন করতে হবে। মূলত মেডিক্যাল অফিসার পদে কর্মী নিয়োগের জন্য এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। যদিও জানানো হয়েছে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগের জন্য এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে।

আগ্রহী প্রার্থীদের দ্রুত আবেদন করতে জানানো হয়েছে অনলাইন মারফত। প্রার্থীদের কমপক্ষে mbbs করতে হবে বলে জানানো হয়েছে। জানানো হয়েছে ইতিমধ্যে আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। দ্রুত আবেদন করতে জানানো হয়েছে। বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়োগের জন্য এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে দিল্লি ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন।

চাকরিপ্রার্থীদের দিল্লি ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন বা dtc-এর মূল ওয়েবসাইট থেকে আবেদন করতে হবে বলে জানানো হয়েছে। এই ওয়েবসাইট খুলে প্রার্থীদের what new section এই অপশনটিতে যেতে বলা হয়েছে। ওই অপশনে গিয়ে চাকরিপ্রার্থীদের বিজ্ঞপ্তির ফর্ম ডাউনলোড করে নিতে হবে।

সেখান থেকে চাকরিপ্রার্থীরা নিজেদের পছন্দমতো পদে আবেদনের জন্য বিস্তারিত বিষয়গুলি খতিয়ে দেখতে হবে। তার পরে ফর্ম ফিল আপ করে তা পাঠিয়ে দিতে হবে। দিল্লি ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন বা dtc-এর আরও জানানো হয়েছে যে বিজ্ঞপ্তি দেখতে হবে আগ্রহী প্রার্থীদের। অনলাইনে বিজ্ঞপ্তিতে সব বিষয় সম্পর্কে একটি সুষ্পষ্ট ধারমা দেওয়া হয়েছে । এই মুহূর্তে সাধারণ মানুষের কাছে চাকরি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। করোনার জেরে একাধিক মানুষের চাকরি না থাকার কারণে যথেষ্ট অসুবিধার মধ্যে রয়েছে অনেকেই। সেই কারণেই এই চাকরি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। আর এই কারণে মনে করা হচ্ছে একাধিক মানুষ আবেদন করবেন এই চাকরির জন্য।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।