রায়পুর: নিজের স্ত্রীকে হত্যা করলেন এক স্বামী৷ স্ত্রীয়ের একমাত্র অপরাধ তিনি জল আনতে দেরী করেছিলেন৷ ছত্তিশগড়ের রায়পুরে এমনই ঘটনা ঘটেছে৷ খবর অনুযায়ী মৃতা পুজা দিলের ঘটনার সময় বাড়িতে খাবার তৈরি করছিলেন৷ এমন সময় তার স্বামী তাকে জল আনতে বলেন৷ জল আনতে দেরী হওয়ার স্বামী তাকে ভাল মন্ড অনেক কথা শোনান৷ কিছুক্ষণের মধ্যেই দুজনের মধ্যে ঝগড়া বেড়ে যায়, মদ্যপ অবস্থা স্বামী তার স্ত্রীয়ের গায়ে পাথর ছুঁড়ে মারতে থাকেন ও উনুন জ্বালানোর  লাঠি স্ত্রীয়ের পেটে ঢুকিয়ে দেন৷ এতে গভীর ভাবে আহত হন পুজা৷ চিৎকারের ফলে তাদের বাড়িতে প্রতিবেশিরাও হাজির হন৷ প্রতিবেশিরাই পুলিশকে খবর দেন৷ আশঙ্কাজনক অবস্থায় পুজাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়৷ পুজা অভিযুক্ত ব্যাক্তির দ্বিতীয় স্ত্রী ছিলেন৷ তারা দুজনে কয়েক বছর ধরে একসঙ্গেই থাকতেন৷ এই ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ ঘটনার জেরে এলাকায় ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.