লন্ডন : ‘অনলাইন শপিং’ করোনার কারণে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ঘরে বসেই এক ক্লিকেই দরজার সামনে হাজির মনপসন্দ রকমারি জিনিস। ঘরের আসবাবপত্র হোক কিংবা গৃহস্থালির সরঞ্জাম সব কিছুতেই বিভিন্ন ই-কমার্স সাইটের জুড়ি মেলা ভার।

আর এই বৈশ্বিক মহামারীর সময়ে গৃহবন্দী মানুষের কাছে বিভিন্ন অনলাইন শপিং প্ল্যাটফর্মগুলি বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে তা বলাই বাহুল্য । যদিও ডিজিটাল এই শপিং কমপ্লেক্সে মার্কেটিং করতে গেলে যে সবসময় সুখকর অভিজ্ঞতা হবে গ্রাহকদের এমনটা কিন্তু নয়। বরং মাঝে মাঝে গ্রাহকদের সঙ্গে এমন কিছু ঘটনা ঘটে যা শুনলে হাসিও পাই আবার একটু আধটু রাগও হয় বটে।

তবে অতিসম্প্রতি ব্রিটেনের বাসিন্দা বছর পঞ্চাশের জেমস নিকের সঙ্গে যে ঘটনাটি ঘটেছে তার জন্য অবশ্য রেগে যাওয়ার কোনও কারণ নেই। বরং অনলাইনে আপেল অর্ডার দিয়ে যে সারপ্রাইজ গিফট তিনি পেয়েছেন তা শুনলে ভিমড়ি খাবেন আপনিও।

জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন আগে অনলাইনে আপেল ফলের অর্ডার দিয়েছিলেন জেমস নিক। বুধবর তাঁর সেই অর্ডারটি ডেলিভারি হয়। অর্ডারটি ডেলিভারি হতেই বক্স খুলতেই চক্ষু চড়কগাছ নিকের। বাক্স খুলে যা দেখলেন তা কার্যত অবিশ্বাস্য। আপেল ফল নয়, সুসজ্জিত ওই প্যাকেটের মধ্যে রয়েছে ‘অ্যাপেলের আইফোন’। কয়েক শো টাকার আপেলের পরিবর্তে কয়েক লাখ টাকার ‘আইফোন এসই’ মেলায় রীতিমতো বিস্মিত হয়ে পড়েন তিনি।

তারপর নিজেই ওই ফোনের ছবি ও ভিডিও তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। আর কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই নেটিজেনদোর মধ্যে ব্যাপক ভাইরাল হয় ওই পোস্টটি। অতিউৎসাহী নেট নাগরিকের কেউ কেউ আবার কমেন্ট করে নিজেদের বক্তব্যও পেশ করেছেন।

যদিও জানা গিয়েছে, ভুল করে নয় বরং গ্রাহকদের নয়া চমক দিতে আইফোনের পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা টেস্কোর এটি একটি নতুন পদক্ষেপ। যেখানে ব্রিটেনের প্রায় ৮০ টি আউটলেট থেকে অনলাইন গ্রোসারি অর্ডারের উপর এই সারপ্রাইজ গিফট দেওয়া হচ্ছে গ্রাহকদের। তবে এর পিছনে আর অন্য কোনও উদ্দেশ্য রয়েছে কিনা তা এখনও পরিস্কার করে জানা যায়নি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.