নয়াদিল্লি: গত শুক্রবার রাতে চাঁদের মাটিতে নামার কথা ছিল চন্দ্রযানের ল্যান্ডার বিক্রমের। কিন্তু কয়েক মুহূর্ত আগেই তার সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন হয়ে যায়। যে মুহূর্তে ইসরো ঘোষণা করে যে চন্দ্রযানের সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন হয়ে গিয়েছে, তারপর থেকেই উল্লাস শুরু হয় পাকিস্তানে। বিশেষ পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরি ‘ভারত ব্যর্থ’ বলে ট্যুইট করতে শুরু করেন। ভারত তথা ইসরোকে নিয়ে শুরু হয় ঠাট্টা-মস্করাও।

স্বাভাবিকভাবেই পাক মন্ত্রীর এই আচরণ মোটেই ভালোভাবে নেয়নি ভারতীয়রা। যে দেশে এমন কোনও উল্লেখযোগ্য অভিযানের কথাই শোনা যায় না, সেই দেশের মন্ত্রীর কাছ থেকে এই ধরনের মন্তব্য শুনে রীতিমত আক্রমণ শুরু করে ভারতীয়রা। মেন করিয়ে দেয় পাকিস্তানের এমন মন্তব্য করার অধিকারই নেই।

এবার পাক মন্ত্রীকে নাম না করে কড়া জবাব দিলেন ডিআরডিও চিফ জি সতীশ রেড্ডি। তিনি বলেন, ‘যারা এই ধরনের উচ্চপর্যায়ের অভিযান কখনও করেনি, তারা এই অভিযানের জটিলতা বুঝবে না। এটি একটি খুবই জটিল অভিযান। এই অভিযানের মর্ম তারাই বুঝবে যারা এই ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসাও করেন সতীশ রেড্ডি। তিনি যেভাবে ইসরো প্রধান কে সিবানকে জড়িয়ে সান্ত্বনা দিয়েছেন, তার জন্য সাধুবাদ জানান ডিআরডিও চিফ। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সৌজন্য অসাধারণ। তিনি হতাশ হয়ে পড়া বিজ্ঞানীদের উৎসাহ দিয়েছেন।’

আমেরিকার মহাকাশ গবেষণা সংস্থা আগেই অভিনন্দন জানিয়েছে ইসরোকে। ট্যুইট করে সঙ্গে থাকার বার্তা দিয়েছে নাসা। তারা লিখেছে, ‘মহাকাশটা বড্ড কঠিন। তোমাদের পথচলা আমাদের অনুপ্রাণিত করেছে। আগামিদিনে সৌরজগতকে আরও বেশি আবিষ্কার করার সঙ্গী হতে পারি আমরা।’

চাঁদের অবতরণের মিনিট দুয়েক আগে ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ইসরোর। তবে চন্দ্রযান ২ কিন্তু পুরোপুরি ব্যর্থ নয়। অরবিটারের সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন হয়নি। বরং সেটি সঠিক কক্ষপথে চাঁদকে প্রদক্ষিণ করছে, ছবি তুলেও পাঠাবে ভারতে। মাত্র পাঁচ শতাংশ ব্যর্থ হয়েছে বলে জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। আর রবিবার সকালে সেই ল্যান্ডারের ছবিও ধরা পড়েছে অরবিটারে। দ্রুত বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা চলছে।

জানা গিয়েছে, এই অরবিটারের ছবি থেকে বিজ্ঞানীদের হাতে উঠে আসবে গুরুত্বপূর্ণ বৈজ্ঞানিক তথ্য। ভারত সরকারের প্রিন্সিপ্যাল সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইজর আধ্যাপক কে বিজয় রাঘবন ট্যুইটারে বলেন, এই অরবিটারের আয়ু এক বছর হবে বলে পরিকল্পনা করা হয়েছিল। কিন্তু ইসরো যেভাবে পাঠিয়েছে তাতে ৭ বছর থাকবে অরবিটারটি।