বেঙ্গালুরু: কুড়ি-বিশের লড়াই কৌলিন্য হারিছে টেস্ট ক্রিকেট৷ বাইশ গজে পাঁচ দিনের লড়াই দেখার আগ্রহ হারিয়ে দর্শকরাও৷ অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে ফাঁকা গ্যালারিতে টেস্ট খেলেছেন ক্রিকেটাররা৷ কিন্তু গোলাপি বল দিন-রাতের টেস্টে পরিস্থিতি বদলাতে চলেছে এমনটা মনে করেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক তথা ‘দ্য ওয়াল’ রাহুল শরদ দ্রাবিড়৷ প্রাক্তন অধিনায়ক হিসেবে ইডেনে গোলাপি টেস্টে উপস্থিত থাকবেন দ্রাবিড়৷

শুক্রবার থেকে ইডেনে শুরু হচ্ছে ঐতিহাসিক ডে-নাইট টেস্ট৷ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বিরাট কোহলিদের সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টটি হতে চলেছে ঐতিহাসিক৷ কারণ এটাই ভারতের মাটিতে প্রথম ডে-নাইট টেস্ট৷ গোলাপি বলে সাদা পোশাকে বিরাটদের এই লড়াই মাঠে দশর্ক টানবে বলে মন করেন জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির প্রধান দ্রাবিড়৷ তিনি বলেন, ‘তবে দর্শক টানতে গোলাপি বলে ডে-নাইট টেস্টই একমাত্র সমাধান নয়৷ তবে এটা আমাদের প্রয়োজন৷ শিশির নিয়ন্ত্রণ করতে পারলে গোলাপি বলে দিন-রাতের টেস্ট হতে উঠতে পারে ভারতের বার্ষিক বৈশিষ্ট্য৷ তবে বল ভিজে গেলে বোলারদের জন্য কাজটা অত্যন্ত কঠিন হয়ে যাবে৷’

তবে দিন-রাতে ইডেনে টেস্টই তার প্রমাণ৷ কারণ ইডেনে ভারত-বাংলাদেশ টেস্টের টিকিটের চাহিদা তুঙ্গে৷ প্রথম তিনদিনের টিকিট অন-লাইনেই শেষ হয়ে গিয়েছে৷ ফলে কাউন্টার থেকে প্রথম তিন দিনের টিকিট পাওয়ার সম্ভাবনা নেই বলেই চলে৷ ইন্দোর টেস্টের রেজাল্ট দেখার পর ইডেনে পাঁচদিন ম্যাচ গড়াবে, এমনটা আশা করছেন বিশেষ কেউ৷ সুতরাং ইডেনে প্রথম দিনের টিকিটের দিকেই নজর সবার৷ এটা টেস্ট ক্রিকেটের জন্য ভালো বিজ্ঞাপন হলেও আরও কয়েকটি বিষয়ের দিকে লক্ষ্য রাখা উচিত নয় বলে মনে করেন দ্রাবিড়৷

চলতি বছরেই ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্টে পুণেতে মহারাষ্ট্র ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বেশ কিছু অভিযোগ তোলেন দর্শকরা৷ যেমন টয়লেট, বসার জায়গা এবং কার পার্কিংয়ের সমস্যার কথা তুলে ধরে৷ এই সব বিষয়গুলি গুরুত্ব সহকারে দেখা উচিত বলে মনে করেন৷

২০০১ সালে ইডেনে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ঐতাহিসিক টেস্টের সাক্ষী ছিলেন দ্রাবিড়৷ সেই অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করে দ্রাবিড় বলেন, ‘২০০১ আমরা যথন ইডেনে টেস্ট খেলি, তখন প্রায় এক লক্ষ দর্শক ম্যাচ দেখছিল৷ সে সময় বাড়িতে বাড়িতে এইচডি টেলিভিশন ছিল না৷ তা হলে আরও ভালো অভিজ্ঞতা হয়৷ তখনও মোবাইলেও ক্রিকেট ম্যাচ দেখা যেত না৷’ তবে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো ভারতেও টেস্ট ক্যালেন্ডার প্রয়োজন বলেও মনে করে প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক৷