মুম্বই: ভারতীয় ক্রিকেট বছরের পর বছর ধরে অনেক সুপারস্টার খেলোয়াড়ের জন্ম দিয়েছে৷ তা যে কোনও ফর্ম্যাটেই হোক না কেন৷ তবে গত ৫০ বছরে ভারতের সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যানে সচিন রমেশ তেন্ডুলকরকে ছাপিয়ে গেলেন রাহুল শরদ দ্রাবিড়৷

উইজডেন ইন্ডিয়া পরিচালিত এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, মাস্টার ব্লাস্টারকে ছাপিয়ে ভারতের সেরা ব্যাটসম্যানের শিরোপ জিতে নিয়েছেন দ্রাবিড়৷ সোশাল মিডিয়ায় ক্রিকেটপ্রেমীদের ভোটে সামান্য ব্যবধানে সাড়ে পাঁচ ফুটের এই মারাঠিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন কর্নাকটের এই ধ্রুপদি ব্যাটসম্যান৷ দর্শকরা ‘মিস্টার ডিপেন্ডবল’-কে ভারতের সর্বকালের সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে বেছে নিয়েছেন৷ তিন নম্বরে রয়েছেন সুনীল গাভাস্কর৷ আর চার নম্বরে জায়গা পেয়েছেন বর্তমান ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি৷

দিন দু’য়েক আগে দ্রাবিড়ের প্রশংসা করেছিলেন টিম ইন্ডিয়ার বাঁ-হাতি ওপেনার গৌতম গম্ভীর। তিনি বলেছিলেন, দ্রাবিড় নিজের প্রাপ্য সম্মান পাননি। সারাজীবন সচিনের ছায়ায় কাটিয়েছেন। গম্ভীরের সেই যুক্তিকে মান্যতা দিল উইজডেনের সোশাল মিডিয়ার এই ভোট৷

উইজডেনের সোশাল মিডিয়ার বিচারে ৫২ শতাংশ ভোট পেয়েছেন দ্রাবিড়৷ আর সচিন পেয়েছেন ৪৮ শতাংশ ভোট। ১১,৪০০ জন ক্রিকেট সমর্থকে এই ভোটিং প্রক্রিয়ায় অংশ নিয়েছিলেন। উইজডেন ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, ‘খেলোয়াড় জীবনে দ্রাবিড় যেভাবে ক্রিজ আঁকড়ে লড়াই চালাতেন, এখানও সেভাবেই লড়াই চালিয়ে সচিনকে পিছনে ফেলে সেরা ব্যাটসম্যানের শিরোপা জিতে নেন রাহুল৷’

ভারতের সর্বকালের সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যানের দৌড়ে সচিন, দ্রাবিড়ের সঙ্গে ছিলেন সুনীল গাভাস্কর ও বিরাট কোহলি৷ গাভাস্কর ও কোহলি সেমিফাইনালে পৌঁছেছিলেন। আর ফাইনালের লড়াই হয় দীর্ঘ দিন জাতীয় দলের দুই সতীর্থ সচিন ও দ্রাবিড়ের মধ্যে৷ ফাইনালে সচিনকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেন রাহুল৷

১৬৪ টেস্টে ৫২.৩১ গড়ে ১৩,২৮৮ রান করেছেন ‘দ্য ওয়াল’। ১৯৯৬ সালে লর্ডস টেস্টে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে অভিষেক হয়েছিল দ্রাবিড়ের। ২০১২ সালে শেষ বার তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমেছিলেন কর্নাটকের এই ডানহাতি৷ ৩৬ সেঞ্চুরি ও ৬৩টি হাফসেঞ্চুরি রয়েছে দ্রাবিড়ের ঝুলিতে৷

আর ২৪ বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট দাপিয়ে বেড়ানো সচিন ২০০টি টেস্টে ৫৩.৭৮ গড়ে ১৫,৯২১ রান করেছেন৷ ৫১টি সেঞ্চুরি ও ৬৮টি হাফ-সেঞ্চুরি। সার্বাধিক রান ও সেঞ্চুরির বিচারে যা বিশ্বরেকর্ড৷ ১৯৮৯ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে করাচি টেস্টে অভিষেক হয়েছিল সচিনের৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ