লাল-হলুদে প্রথমদিনের অনুশীলনে টনি ডোভালে। ছবি-সংগৃহীত

কলকাতা: আল আমনা অতীত ইস্টবেঙ্গলে। পরিবর্ত স্প্যানিশ ফুটবলার টনি ডোভালেকে নিয়ে স্বপ্ন দেখা শুরু লাল-হলুদ জনতার। তিন ম্যাচ হারের পর টানা তিন ম্যাচে জয়। ফের প্রবলভাবে লিগ চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াইয়ে ফিরে এসেছে দল। এরই মাঝে গত বুধবার শহরে পা দিয়েছেন নবাগত এই বিদেশী। আর সোমবার দলের সঙ্গে প্রথমবার অনুশীলনে যোগ দিলেন ডোভালে।

আরও পড়ুন: উৎসবের আবহে অনুরাগীদের ‘সেরা সেলফি’ উপহার পান্ডিয়ার

জানুয়ারির ট্রান্সফার উইন্ডোতে সই করায় ডোভালের আন্তর্জাতিক ছাড়পত্র এখনও এসে পৌঁছয়নি। সুতরাং নতুন বছরের আগে তাঁর মাঠে নামা সম্ভব নয় কোনওমতেই। তাই এদেশে পা রাখার পর কয়েকদিন বিশ্রামেই ছিলেন এই স্প্যানিশ উইঙ্গার। গোয়া থেকে ফিরলে দলের সঙ্গেই অনুশীলনে নামার কথা ছিল তাঁর। সেইমত চার্চিল বধের পর ইস্টবেঙ্গল কলকাতায় ফিরলে সোমবার দলের সঙ্গে প্রথম অনুশীলনে নামলেন বেঙ্গালুরু এফসি’র প্রাক্তনী। খুব অল্প সময়ে দলের সঙ্গে দারুণভাবে মানিয়ে নিয়েছে কোলাডো। পাশাপাশি স্বপ্নের ফর্মে রয়েছেন জবি জাস্টিন। তাই অনুশীলনে শেষে ডোভালে জানিয়ে দিলেন, জবি-কোলাডোর সঙ্গে মাঠে নামতে মুখিয়ে রয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: উত্তেজক মিনিডার্বিতে দার্জিলিং গোল্ডকাপ জয় ইস্টবেঙ্গলের

২০১৭-১৮ মরশুমে ইস্টবেঙ্গলে বিরুদ্ধে সুপার কাপে মাঠে নেমেছিলেন ডোভালে। তাই ভারতীয় ফুটবল বা আবহাওয়ার সঙ্গে অনভ্যস্ত নন তিনি। গত মরশুমে সাইপ্রাসের ক্লাবের হয়ে না খেললেও তাঁর চোট-আঘাতের কোনও সমস্যা নেই বলেই ভারতে এসে জানিয়ে দেন ডোভালে। পাশাপাশি আলেজান্দ্রো, ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গেও পূর্বপরিচিত তিনি। তাই মরশুমের মাঝপথে এলেও দলের সঙ্গে মানিয়ে নিতে কোনও সমস্যা হবে না বলে জানান টনি।

আরও পড়ুন: ‘ভূত’ তাড়িয়ে সমর্থকদের বড় দিনের গিফ্ট দিল মোহনবাগান

তাই কাশ্মীরের বিরুদ্ধে মাঠে না নামতে পারলেও সোমের সকালে যুবভারতীর ট্রেনিং গ্রাউন্ডে বল পায়ে কসরতে নেমে পড়েন ডোভালে। উদ্দেশ্য দলের বাকিদের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া এবং পুরোপুরি ম্যাচ ফিট হয়ে ওঠা। এদিকে লিগ শীর্ষে থেকে বছর শেষ ও একইসঙ্গে নতুন বছর শুরু করার সুযোগ লাল-হলুদের সামনে। চেন্নাই সিটিকে গত ম্যাচে হারিয়ে ইস্টবেঙ্গলকে সেই সুযোগ করে দিয়েছে রিয়াল কাশ্মীরই। আর ২৮ তারিখ সেই কাশ্মীরকে হারিয়েই মগডালে চড়তে প্রস্তত আলেজান্দ্রো ব্রিগেড।