আকোলা: ডুব মরো…ডুব মরো… কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপ আর মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনের মধ্যে যোগসূত্র স্থাপন করবেন না কারণ জম্মু ও কাশ্মীর এবং সেখানকার মানুষও ভারতমাতার সন্তান, এই ভাষাতেই রাজনৈতিক বিরোধিদের আক্রমণ শাণালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী এবং বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদী।

প্রধানমন্ত্রী মোদী তাঁর বক্তব্যে জানিয়েছেন, “রাজনৈতিকভাবে লাভ করার জন্য কিছু মানুষ বলছেন যে আর্টিকেল ৩৭০ ধারার সঙ্গে মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচনের কোনও সম্পর্ক নেই। আমি সেই মানুষদের বলতে চাই যে জম্মু ও কাশ্মীর এবং সেখানকার মানুষরা ভারতমাতারই সন্তান।”

বিধানসভা নির্বাচন আসন্ন মহারাষ্ট্রে। এদিন সেই রাজ্যের আকোলাতে দাঁড়িয়ে একটি জনসভায় ঠিক এই বক্তব্যই রেখেছেন তিনি। তিনি আরও বলেন, “রাজনৈতিক সুবিধাবাদীদের এই ভাবনা দেখে আমার ভেতর থেকে কষ্ট হচ্ছে। তাঁরা কিভাবে মহারাষ্ট্রে কী হতে পারে তা নিয়ে মন্তব্য করছেন।”

এই বক্তব্য রাখার পরেই তিনি আরও ধারালো আক্রমণ করে বলেন যে, “ডুবে মরো……ডুবে মরো…”। তিনি বলেন, দেশের মানুষ মহারাষ্ট্রের মানুষদের নিয়ে গর্বিত। গোটা দেশ দেশপ্রেমীদের সঙ্গে সবসময় আছে। সন্ত্রাসবাদীদের সম্পূর্ণ বিরোধিতা করছে দেশের মানুষ।

আগামী ২১ অক্টোবর মহারাষ্ট্র এবং হরিয়ানা বিধানসভার নির্বাচন এবং তার ফলাফল ঘোষণা করা হবে আগামী ২৪ অক্টোবর। প্রধানমন্ত্রী মোদি শরদ পাওয়ারের করা অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেন যে, “আপনিও খুশি যে অনুচ্ছেদ ৩৭০ ধারা অবলুপ্ত করা হয়েছে। কিন্তু এই মানুষেরা কষ্ট পাচ্ছেন। যেন তাঁদের বিরাট কিছু খোওয়া গেছে”।

মঙ্গলবার শরদ পাওয়ার পুণেতে একটি সমাবেশে বলেন, “যেহেতু বিজেপির দেখানোর মতো কিছু নেই, তাই তারা জম্মু ও কাশ্মীরের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করার বিষয়টিকে নিয়ে প্রচার করছে। যখন এটি বাতিল করা হয়, তখন কাশ্মীরে কিছু লোক প্রতিবাদ করেছিল। ” তিনি আরও বলেন যে, “কৃষক আত্মহত্যা, বেকারত্ব, শিল্প বন্ধের বিষয়ে তাঁদের প্রশ্ন করুন এবং বিজেপি ৩৭০ অনুচ্ছেদের মাধ্যমে তার জবাব দেবে”।

মহারাষ্ট্রে প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী প্রচার শেষ হবে ১৮ অক্টোবর। ঐ রাজ্যে এক দফার নির্বাচন হতে চলেছে অক্টোবরের ২১ তারিখ এবং ফলাফল ঐ মাসেরই ২৪ তারিখ আসবে।