মেলবোর্ন: অনিশ্চয়তার কালো মেঘের আস্তরণ থাকলেও করোনা আবহেই পারদ চড়তে শুরু করেছে বছর শেষে ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফর ঘিরে। দিনদু’য়েক আগে ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ খেলার ব্যাপারে তাঁর উত্তেজনার কথা জানিয়েছিলেন স্টিভ স্মিথ। আর এবার ঘরের মাটিতে ভারত সফরকে ঘিরে তাঁর উন্মাদনার কথা হাবে-ভাবে বুঝিয়ে দিলেন অজি অধিনায়ক টিম পেইন।

দর্শকহীন গ্যালারিতে করোনা পরবর্তী সময় ক্রিকেট সহ অন্যান্য খেলা আয়োজন করছে বিভিন্ন দেশ। ‘নিউ নর্মাল’ এই বিষয়টিকেই সাদরে গ্রহণ করছেন অনুরাগীরাও। তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এরই মাঝে কিছু সংখ্যক দর্শককে মাঠে প্রবেশের অনুমতি দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। কিন্তু বোর্ড অনুমতি দিক কিংবা না দিক, বাইশ গজের উত্তাপে তা খুব একটা প্রভাব ফেলবে না বলেই মনে করছেন পেইন। ম্যাচের আবহে ঢুকে পড়লে তখন আর গ্যালারির কথা মনে থাকে না, বলছেন অজি অধিনায়ক।

পেইন বলছেন, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার হাতে ভেন্যুর কোনও অভাব নেই। প্রয়োজনে বহু প্রতীক্ষীত ভারতীয় দলের জন্য ভেন্যু বদল করতেও রাজি তারা। ভিক্টোরিয়া প্রদেশে কোভিড১৯’র প্রকোপ সাম্প্রতিক সময়ে মাথাচাড়া দেওয়ায় বক্সিং-ডে টেস্ট মেলবোর্ন থেকে সরে যাওয়ার সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছে। পেইনের কথায়, ‘আমরা আশাবাদী যে আমরা যেখানেই খেলি না কেন দর্শকের উপস্থিতি আমাদের সঙ্গে থাকবে। তবে সেটা সংখ্যায় কতো, সেটা জানা নেই। কারণ দিন-দিন, প্রতি সপ্তাহে অবস্থার পরিবর্তন ঘটছে।’

পেইন আরও বলেন, ‘একজন প্লেয়ার হিসেবে আমি অবশ্যই চাইব প্রচুর সংখ্যক দর্শকের সামনে খেলতে। কিন্তু আমার মনে হয় দর্শকের থাকা না থাকাটা খুব একটা প্রভাব ফেলবে না। বাইশ গজের লড়াইয়ের উত্তাপে একবার প্রবেশ করে গেলে অধিকাংশ ক্রিকেটার গ্যালারির কথা ভুলে যাবে। সুতরাং, দর্শক থাকা না থাকা খুব একটা প্রভাব ফেলবে না। তুমি কতোটা পারফর্ম করছো, বাইশ গজে তোমার দক্ষতা প্রয়োগে সক্ষম হতে পারছো সেটাই আসল ব্যাপার।’

একইসঙ্গে বিরাট কোহলির দলকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়ে হোবার্টজাত উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জানিয়েছেন, ‘শেষবার ওরা আমাদের তুলনায় ভালো হিসেবে প্রতিপন্ন হয়েছিল। তবে অস্ট্রেলিয়া দল গত দু’বছরে প্রভূত উন্নতি করেছে।’ এই অস্ট্রেলিয়া দল স্কোরবোর্ডে প্রচুর রান খাড়া করে প্রতিপক্ষকে বেকায়দায় ফেলতে প্রস্তুত, জানিয়েছেন পেইন।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও