নয়াদিল্লি: আর কিছুক্ষণ পরেই শুরু হতে চলেছে সূর্যগ্রহণ । কলকাতায় সকাল ১০ টা ৪৬ মিনিটে এই গ্রহণ শুরু হবে। আর শেষ হবে ২ টো ১৭ মিনিটে।

দেশের মধ্যে কয়েকটি জায়গা থেকে দেখা মিলবে ‘রিং অফ ফায়ার’ -এর। চাঁদের ছায়া সূর্যকে প্রায় পুরো ঢেকে দেবে ফলে সূর্যের মাঝের অংশ ঢেকে গিয়ে আংটির মত আকার নেবে। সূর্যের সর্বোচ্চ ৯৯.৪% ঢেকে দেবে চাঁদের ছায়া।

সূর্যগ্রহণ শুরু হবে কঙ্গোতে, কিন্তু সর্বোচ্চ গ্রহণ হবে ভারতে আর গ্রহণ শেষ দেখা যাবে ফিলিপিনের আকাশে। দেশের যোশীমঠ শহরে ১২টা ৪০ মিনিট ৬ সেকেন্ডে সর্বোচ্চ গ্রহণ দেখা যাবে।

এবারের সূর্যগ্রহণ যেহেতু বলয়গ্রাস সূর্যগ্রহণ, তাই এই গ্রহণ খালি চোখে দেখলে চোখ খারাপ হওয়ার সম্ভাবনার সঙ্গে সঙ্গে অন্ধত্বও হতে পারে।

কেন্দ্রের তরফে নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছে, কোনওভাবেই সানগ্লাস, গগলস বা ব্যবহার করা এক্স রে প্লেট দিয়ে সূর্যগ্রহণ দেখতে যাবেন না। এমনকী জলের ওপর পড়া সূর্যের প্রতিচ্ছবিও দেখতে নিষেধ করা হয়েছে।

যদি দেখতেই হয় তবে ওয়েল্ডার গ্লাস নাম্বার ১৩ বা ১৪ দিয়ে সূর্যগ্রহণ দেখতে পারেন। এছাড়া যদি কেউ দেখতে চান তবে ছাঁকনি দিয়ে সূর্যগ্রহণ দেখতে পারেন। সেক্ষেত্রেও ছাঁকনির ফুটো হবে সূচের মাপের।

২১শে জুন রবিবারের এই বিরল পূর্ণগ্রাস সূর্যগ্রহণ কয়েকটি জায়গা থেকে দেখা মিলবে। ‘রিং অফ ফায়ারে’ চাঁদের ছায়া সূর্যকে প্রায় পুরো ঢেকে দেবে ফলে সূর্যের মাঝের অংশ ঢেকে গিয়ে আংটির মত আকার নেবে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও