দেওরিয়াঃ  সীমান্তে যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যেই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ! টানটান উত্তেজনা।  গোটা দেশ ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের দিকে তাকিয়ে।  কিন্তু সীমান্তে যেভাবে ভারতীয় সেনা জওয়ানের শহিদ হওয়ার ঘটনা ঘটছে তাতে এই ম্যাচ যাতে না হয় সেজন্যে মোদীর কাছে চিঠি দিলেন বিএসএফের শহিদ জওয়ান প্রেম সাগরের পরিবার। উল্লেখ্য, বিএসএফের হেড কনস্টেবল প্রেম সাগরকে খুনের পর তাঁর অঙ্গচ্ছেদ করেছিল পাক বাহিনী।

শহিদ জওয়ানের ছেলে ঈশ্বর চন্দ্র সাংবাদিকদের বলেছেন, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারত ও পাকিস্তান ম্যাচের বিরোধিতা করছি আমরা।  সরকারের অবশ্যই শহিদ পরিবারের যন্ত্রনার কথা বোঝা উচিত।  পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের ম্যাচ খেলা উচিত নয়।  ওই দেশের সঙ্গে কোনও সম্পর্কও রাখা উচিত নয়।  তিনি আরও বলেছেন, পাকিস্তানের সঙ্গে ম্যাচ না খেলার জন্য আমরা প্রধানমন্ত্রী ও বিসিসিআইয়ের কাছে আর্জি জানাচ্ছি।

প্রসঙ্গত, সীমান্তে টহল দেওয়ার সময়ে জম্মু ও কাশ্মীরের পুঞ্চ সেক্টরে পাক বাহিনী নায়েব সুবেদার পরমজিত সিংহ এবং প্রেম সাগরকে হত্যা করে তাঁদের মুণ্ডচ্ছেদ করেছিল।  এরপরেই পাকিস্তানের উপর চরম আঘাত হানার হুঁশিয়ারি দেন।  কিন্তু এরপরেও পাকিস্তানের সঙ্গে খেলতে চলেছে ভারত।  আর তাতেই চরম ক্ষুব্ধ শহিদের পরিবার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.