মুম্বই: করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে চলতি বছরে টি-২০ বিশ্বকাপ আয়োজন কার্যত অসম্ভব বলে জানিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া৷ আর এর ফলেই খুলে গিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের আইপিএল আয়োজনের সম্ভাবনা৷ বিশ্বকাপ না-হলে সেই উইন্ডোতে আইপিএল আয়োজন করতে পারবে বিসিসিআই।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল তথা আইসিসি এই ব্যাপারে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত বলে মনে করছেন বিসিসিআই কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমল। এক ওয়েবসাইটে তিনি জানিয়েছেন, ‘বিশ্বকাপ আয়োজন করতে অপারগ বলে জানিয়ে দিয়েছে আয়োজক দেশ। সুতরাং আইসিসি-র খুব বেশি কিছু করার আছে বলে মনে হয় না৷ জানি না ওরা কেন দেরি করছে। আইসিসি সিদ্ধান্ত নেবে টি-২০ বিশ্বকাপ নিয়ে৷ তবে এই সিদ্ধান্ত দ্রুত হলে বিশ্বক্রিকেটের পক্ষে ভালো।’

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ১৮ অক্টোবর থেকে ১৫ নভেম্বর হওয়ার কথা টি-২০ বিশ্বকাপ৷ কিন্তু ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যান আর্ল এডিংস মঙ্গলবার জানিয়ে দেন যে, করোনাভাইরাসের জেরে ১৬ দেশকে নিয়ে বিশ্বকাপ করা খুব কঠিন। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যান বলেন, ‘এখনও পর্যন্ত সরকারিভাবে টি-২০ বিশ্বকাপ পিছিয়ে দেওয়া হয়নি বা স্থগিত করা হয়নি ঠিকই। কিন্তু ১৬টি দেশকে নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় চলতি বছর টি-২০ বিশ্বকাপ করা অবাস্তব বলেই মনে হচ্ছে।’

আইসিসি অবশ্য টি-২০ বিশ্বকাপের আয়োজনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জুলাইয়ে নেবে। বিসিসিআই এই ব্যাপারে আইসিসি-র থেকে দ্রুত সিদ্ধান্ত চাইছে। কারণ, অন্য কোনও দেশে বিশ্বকাপ না-হলে এই সময়ে আইপিএল আয়োজন নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড৷ ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় দর্শকশূন্য মাঠেই আইপিএল চালু করার ইঙ্গিত দিয়েছেন৷ দেশের সব ক্রিকেট সংস্থার কাছে তিনি এই মর্মে চিঠিও পাঠিয়েছেন।

বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ ধুমল বলেন, ‘যদি চলতি বছরে বিশ্বকাপ না হয়৷ এ ব্যাপারে আইসিসি দ্রুত সিদ্ধান্ত নিলে, আমরা সেই সময় আইপিএলের কথা ভাবব৷’ তবে করোনাভাইরাসের কারণে আইপিএল কোথায় হতে পারে? এই প্রশ্নের উত্তরে ধুমল বলেন, ‘বিকল্প ভেন্যু ভাবা হচ্ছে। ক্রিকেটারদের পক্ষে নিরাপদ জায়গায় আইপিএল আয়োজনের ভাবনা রয়েছে৷।’

আইপিএল আয়োজন নিয়ে ইতিমধ্যেই আগ্রাহ দেখিয়েছেন সংযুক্ত আরবআমীরশাহী এবং শ্রীলঙ্কা৷ আইপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল জানিয়েছেন, বিশ্বকাপ না-হলে সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরে আইপিএল হতে পারে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।