নয়াদিল্লি: ভারতের প্রতি চিনের উদ্দেশ্য ভালো নয়, তাই ভারতীয় দের শুধু চিনা দ্রব্য বয়কট করাই উচিৎ নয়, চিনকে ঘৃণাও করা উচিৎ। এমনটাই বললেন, যোগ গুরু রামদেব।

আজ তক সংবাদমাধ্যমের একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এই প্রসঙ্গে কথা বলেন। উল্লেখ্য, লাদাখ সীমান্তে যেভাবে চিন ঔদ্ধত্য দেখাচ্ছে তাতে দেশ জুড়ে চিনা দ্রব্য বয়কট করার দাবি উঠেছে।

রামদেব এদিন বলেন, দেশকে যারা ভালোবাসেন তাঁদের কোনও চিনা দ্রব্য কেনা উচিৎ নয়, জওহরলাল নেহরুর সময় থেকে শুনে আসছি, ‘হিন্দি-চিনি ভাই ভাই’। কিন্তু এই ‘ভাই-ভাই’ সম্পর্কের আড়ালে চিন বরাবরই আমাদের পেটে ছুরি মেরে আসছে।’

রামদেবের কথায়, চিন ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য করে লাভ বাড়ায় আর সেই টাকাতেই ভারতকে আক্রমণ করে, আবার পাকিস্তানকে টাকা দেয়।

তাঁর দাবি, আমেরিকা ও ইউরোপের সঙ্গে হাত মিলিয়ে চিনকে আন্তর্জাতিক ও কূটনৈতিক স্তরে বয়কট করা উচিৎ। শুধু চিনা দ্রব্য বয়কট নয়, চিনকে শত্রু বলে চিহ্নিত করা উচিৎ বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

গত কয়েকদিন ধরে ভারতের উত্তর সীমান্তে চলছে চিনের সঙ্গে সংঘাত। আর সেই জন্যই চিনকে কড়া জবাব দিতে চিনা দ্রব্য বয়কট করার কথা বলেছেন সোনম ওয়াংচুক। লাদাখের যে শিক্ষা সংস্কারকের চরিত্রের উপর ভিত্তি করেই তৈরি হয় থ্রি ইডিয়টসের র‍্যাঞ্চো। আর তাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে অনেকেই চিনা অ্যাপ বা চিনা মোবাইল বর্জন করছেন।

বিশেষ ভিডিও-তে সেই আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। আর সেই ভিডিওতে ইতিমধ্যেই ভিউ ছাড়িয়েছে ২০ লক্ষের বেশি। সেই প্রসঙ্গে সোনম ওয়াংচুক বলেন, ২০ লক্ষ মানুষ যদি সত্যিই সাড়া দেন, তাহলে চিন বুঝে যাবে ভারতকে উত্যক্ত করার মূল্য কীভাবে চোকাতে হচ্ছে।

ওয়াংচুক বলেন, এভাবে যদি ভারতীয়রা চিনা অ্যাপ আনইনস্টল করতে শুরু করে, তাহলে চিনের সরকারের কাছে একটা মেসেজ যাবে যে ভারতে তারা অনধিকার প্রবেশ করছে। তিনি আরও বলেন, বয়কটই হল সবথকে শক্তিশালী অস্ত্র। এই অস্ত্রেই চিনকে যোগ্য জবাব দিতে হবে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV