ওয়াশিংটন: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে সংঘাত ও সদস্য থেকে সরে আসার পথ নেওয়ার মতো বিতর্কের মাঝেই ফের মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নির্দেশ সেপ্টেম্বর মাসে খুলতে হবে সব বিদ্যালয়। না খুললেই সরকারি অর্থ সাহায্য বন্ধ হবে। এই নির্দেশের পরেই মার্কিন মুলুকে ফের শোরগোল।

কারণ, বিশ্বে এখনও সর্বাধিক করোনা সংক্রমণ হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। মৃত্যুও সবথেকে বেশি। কোনওভাবেই পরিস্থিতি বাগে আনা যাচ্ছে না। তার মধ্যেই নতুন করে বিদ্যালয় খোলার নির্দেশ সরকারের। আসন্ন সেপ্টেম্বরে পরিস্থিতি কেমন হবে তা নিয়ে এখনও নিশ্চিত নন বিশেষজ্ঞরা।

বিবিসি জানাচ্ছে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হুঁশিয়ারি আগামী সেপ্টেম্বর মাসে করোনাভাইরাসের কারণে যে সব বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলতে চাইবে না তাদের অর্থ দেওয়া হবে না। টুইট বার্তায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, বন্ধ থাকা বিদ্যালয় চালু করা পরিবার ও শিশুদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি অভিযোগ করেন যে ডেমোক্র্যাটরা রাজনৈতিক কারণে স্কুল বন্ধ রাখতে চায়। এর পরেই মার্কিন রাজনৈতিক মহলে শুরু নতুন বিতর্ক। বিবিসি জানাচ্ছে, শিক্ষা খাতের শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিরা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন।

জাতীয় শিক্ষা সমিতির প্রেসিডেন্ট লিলি এসকেলসেন গার্সিয়া সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানান, ডোনাল্ড ট্রাম্প গত ৪৮ ঘণ্টায় যা কিছু বলেছেন তার কোনোটাই দায়িত্বশীল বক্তব্য নয়। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আইন এক্ষেত্রে প্রেসিডেন্টের অবস্থানের বিপরীতে রয়েছে। আইন অনুসারে প্রেসিডেন্ট এককভাবে কোনও স্কুলকে দেওয়া কেন্দ্রীয় অর্থ সাহায্য বাতিল করতে পারেন না।

কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, দেশের প্রায় সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেশিরভাগ অর্থ আসেই রাজ্য সরকারের কাছ থেকে। কেন্দ্রীয়ভাবে দেওয়া হয় অতিরিক্ত আর্থিক সাহায্য। ওয়ার্ল্ডোমিটার পরিসংখ্যান বলছে, মার্কিন মুলুকের সর্বশেষ করোনা সংক্রমিত ১ লক্ষ ৩৪ হাজারে বেশি রোগী মৃত।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ