আহমেদাবাদ:  ঐতিহাসিক ভারত সফরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর ভারতে এসেই ছুটেই গেলেন সবরমতি আশ্রমে। একেবারে গান্ধী শরণে। ঐতিহাসিক সবরমতী আশ্রম পরিদর্শন করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ফার্স্ট লেডি। একেবারে নিজের চোখে দেখলেন কীভাবে চরকায় সুতো কাটা হয়। শুধু তাই নয়, নিজে হাতে চরকায় সুতো কেটে শিখেও নিলেন গোটা প্রক্রিয়াটি। আশ্রমেরই এক সেবিকাকে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও মেলানিয়া ট্রাম্পকে চরকায় সুতো কাটতে শেখাতে দেখা যায়। আর গোটা প্রক্রিয়াটিই পাশে দাঁড়িয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আজ সোমবার নির্ধারিত কিছুটা সময়ের আগেই সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল বিমানবন্দরে অবতরণ করে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিমান। বিমানবন্দরে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও মেলানিয়া ট্রাম্পকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ট্রাম্প কন্যা ইভাঙ্কা এবং জামাতাকেও অভ্যর্থনা জানান তিনি।

এরপরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ফার্স্ট লেডিকে নিয়ে কনভয় ছোটে সবরমতী আশ্রমের দিকে। সবরমতী আশ্রমে পৌঁছে জাতির জনকে মহাত্মা গান্ধীকে শ্রদ্ধা জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প, মেলানিয়া ট্রাম্প ও মোদী। ঘুরে দেখেন গোটা আশ্রম। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সবরমতি আশ্রমের প্রত্যেকটি জায়গা ঘুরে দেখান।

অন্যদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ‘তিন বাঁদরের কিসসা’ বুঝিয়ে দিতেও দেখা যায় মোদীকে। খারাপ জিনিস দেখব না, খারাপ কথা বলব না, খারাপ কথা শুনব না- তিন বাঁদরের এই কাহিনীর অন্তর্নিহিত অর্থ ট্রাম্পকে বলেন মোদী। এরপরই ভিজিটর্স বুকে মোদীকে ‘দারণ বন্ধু’ হিসেবে উল্লেখ করে সবরমতী আশ্রম ঘুরিয়ে দেখানোর জন্য ধন্যবাদ জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট। প্রায় আধঘন্টা সবরমতী আশ্রম ঘুরে দেখেন ট্রাম্প দম্পতি। এরপর মোতেরা স্টেডিয়ামের দিকে রওনা দেন ট্রাম্প। ভিজিটার্স বুকে কিন্তু মহাত্মা গান্ধীর বিষয়ে কিছুই লেখেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট।