বর্ধমান: এনআরসি এবং সিএএ নিয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলা আইএনটিটিইউসির ডাকা সভায় বক্তব্য রাখতে এসে এক আইএনটিটিইউসি নেতার বিরুদ্ধে সরাসরি জেলা পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করে গেলেন আইএনটিটিইউসির রাজ্য সভানেত্রী দোলা সেন।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি বিরোধিতায় বর্ধমান শহরে প্রতিবাদ মিছিলে হাঁটেন আইএনটিটিইউসি সভানেত্রী দোলা সেন। এরই পাশাপাশি কয়েকটি প্রকল্পের উদ্বোধনও করেন তৃণমূলের এই নেত্রী। এলাকার বেশ কয়েকটি কারখানা গিয়েও কর্তৃপক্ষ ও শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে দেখা করেন দোলা।

জেলা আইএনটিটিইউসি সভাপতি ইফতিকার আহমেদ ওরফে পাপ্পু জানিয়েছেন, দোলা সেনকে নিয়ে বেশ কয়েকটি জায়গায় ‘দিদিকে বলো’ কর্মসুচী পালন করা হয়েছে। কয়েকটি উদ্বোধন প্রকল্প ছাড়াও তিনি কয়েকটি কারখানাও যান।

এদিকে, বর্ধমান সংস্কৃতি লোকমঞ্চে এনআরসি ও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধিতা নিয়ে আয়োজিত সভায় বক্তব্য রাখেন দোলা সেন। সেই সভায় হাজির ছিলেন জেলা তৃণমূলের নেতা খোকন দাস, উজ্জ্বল প্রামাণিক-সহ জেলার অন্যান্য তৃণমূল নেতারা।

মাধ্যমিক পরীক্ষার মাঝেই সংস্কৃতি লোকমঞ্চের বাইরে মাইক লাগিয়ে সভা করায় প্রশ্ন ওঠে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে সংস্কৃতি লোকমঞ্চের বাইরে থাকা মাইক বাজানো বন্ধ করে দেয়। যদিও এব্যাপারে আয়োজক নেতারা কিছু বলতে চাননি।

অন্যদিকে, সভামঞ্চে বক্তব্য রাখতে গিয়ে খোকন দাস, জেলা আইএনটিটিইউসি সভাপতি ইফতিকার আহমেদ এবং রাজ্য সভানেত্রী দোলা সেন রীতিমত সরব হয়েছেন তৃণমূলের একাংশের বিরুদ্ধে। আইএনটিটিইউসির নাম করে তোলাবাজিতে অভিযুক্ত দলেরই একাংশ। তাঁদের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন দোলা সেন-সহ অন্যরা। সামনেই বর্ধমান পুরসভার ভোট। তার আগেই তৃণমূলের নেতাদের নামে রীতিমত তোলাবাজি নিয়ে সরব হওয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

বর্ধমান শহরের তৃণমূল নেতা তথা বর্ধমান পুরসভার প্রাক্তন কাউন্সিলর এবং তৃণমূল জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক খোকন দাসের অভিযোগ, পাপ্পুকে আইএনটিটিইউসির দায়িত্ব দেওয়ার আগে যাঁরা দায়িত্বে ছিলেন তাঁরা কেবলমাত্র তোলাবাজিই করে গিয়েছেন। অযোগ্য ওই নেতারা শ্রমিকদের স্বার্থও দেখেননি বলে দাবি ওই তৃণমূল নেতার। কারখানার মালিকদের সঙ্গে যোগসাজশ করে দলেরই একাংশ শ্রমিকদের শোষণ করেছেন বলেও অভিযোগ তৃণমূল নেতার।

অন্যদিকে, পশ্চিম বর্ধমানে আইএনটিটিইউসির একাংশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন খোদ সংগঠনের সভানেত্রী দোলা সেনও। তাঁর অভিযোগ, খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কড়া নির্দেশ শ্রমিক সংগঠনের নামে কোনওরকম চাঁদা তোলা যাবে না।

তবে বর্ধমানে এসে তাঁর কাছে এমন একাধিক অভিযোগ এসেছে। আইএনটিটিইউসির অনুমোদন না নিয়ে এক নেতা চাঁদা তুলছেন বলে জানার পরই জেলা পুলিশ সুপারকে এব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছেন দোলা সেন। তাঁর এই অভিযোগকেই এফআইআর হিসাবে গ্রহণ করারও আবেদন জানিয়েছেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ