ওয়াশিংটনঃ  ক্রমশ জটিল হচ্ছে পরিস্থিতি! কোনও পক্ষই সীমান্ত থেকে সেনা সরাতে নারাজ। এই অবস্থায় এখনই সমস্ত সমস্যার সমাধান হওয়া প্রয়োজন। আর তা মেটাতে এখনই ভারত এবং চিনের আলোচনায় বসা উচিৎ। চিন এবং ভারতের প্রতিনিধিদের এমনটাই ফোন করে বলল মার্কিন প্রশাসন। যদিও আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধানের জন্যে অনেক আগেই জানিয়েছিল ভারত। কিন্তু তা শুনতে নারাজ চিন। ফলে, চিনের এই বার্তা কতটা চিন শুনবে তা নিয়ে ধন্ধ থেকেই যাচ্ছে।

ডোকলামকে কেন্দ্র করে দুমাস ধরে ভারত-চিন সীমান্তে অস্থিরতা চলছে। এই অচলাবস্থা প্রসঙ্গে মার্কিন প্রশাসনের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল এই বিষয়ে তাঁদের মতামত কী? মার্কিন কংগ্রেসের মুখপাত্র হিথার নৌআর্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁরা দুদেশের প্রতিনিধিকেই ফোন করেছিলেন। এখনই বসে সরাসরি আলোচনা করে এই সমস্যা মিটিয়ে ফেলার পরামর্শ দিয়েছেন তাঁরা।

এর আগে গত ১১ অগাস্টও মার্কিন কংগ্রেসের তরফে ভারত ও চিনকে কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা করে ডোকলাম সমস্যা মিটিয়ে ফেলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল। চিনা বিদেশমন্ত্রকের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, কোনও অবস্থাতেই নিজেদের সীমান্তে সমঝোতা করবে না বেজিং। চিনের তরফে দাবি, কোনও রকম আলোচনায় বসার আগে, ভারতকে ডোকলাম থেকে নিজেদের সেনা সরিয়ে নিতে হবে। কিন্তু ভারতও পালটা জানিয়ে দিয়েছে তাঁরা সেনা সরাবে না।