স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: এনআরএস হাসপাতালে চিকিৎসক আক্রান্তের ঘটনায় চিকিৎসকদের পাশাপাশি শুক্রবার থেকে আন্দোলনে নামল জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালের নার্সিং কর্মীরা। যদিও হাসপাতালের চিকিৎসকরা বুকে কালো ব্যাচ পরে হাসপাতালের রোগী দেখার কাজ করছেন।

আউটডোর ও ইনডোর দুজায়গাতেই রোগীদের পরিষেবা দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। তাদের এই রোগী দেখার কাজ চালু রাখার জন্য জলপাইগুড়ি ‘সমাজ ও নদী বাঁচাও’ কমিটির পক্ষ থেকে চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানিয়ে চকলেট দিলেন কর্মীরা। চিকিৎসকদের পাশাপাশি রোগীদেরও চকলেট বিতরণ করা হয় এই সংস্থার পক্ষ থেকে৷

গত বুধবার জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালের সমস্ত চিকিৎসকরা কলকাতায় জুনিয়র চিকিৎসকদের আন্দোলনকে সমর্থন করে প্রতীকী আউটডোরে রোগী দেখার কাজ বন্ধ করে প্রতিবাদে সামিল হয়েছিলেন৷ এর ফলে সমস্যায় পরেন দূর দূরান্ত থেকে হাসপাতালে আসা রোগীরা। তাদের সমস্যার কথা চিন্তা করে বৃহস্পতিবার থেকে আউটডোরে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার কাজ শুরু করেন।

চিকিৎসকদের এই আন্দোলনকে সমর্থন করে সকাল থেকে সদর হাসপাতালের নার্সিং কর্মীরা কালো ব্যাচ পরে প্রতীকী অবস্থান শুরু করলেন। তাদের দাবি, চিকিৎসকদের পাশাপাশি নার্সিং কর্মীরাও নিরাপত্তার অভাব বোধ করছে৷ সেকারণেই তারা চিকিৎসকদের আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়েছে। শুক্রবার হাসপাতালে আউটডোর গিয়ে জলপাইগুড়ি সমাজ ও নদী বাঁচাও কমিটির পক্ষ থেকে সমস্ত চিকিৎসকদের ধন্যবাদ দেন৷ তাদের আন্দোলনের পাশাপাশি রোগীদের চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার জন্য।

ধন্যবাদের পাশাপাশি চিকিৎসক ও রোগীদের মধ্যে চকলেট খাওয়ানো হয়। সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, চিকিৎসকদের যে কোনও সমস্যার পাশে আমরা সবসময় থাকব। জলপাইগুড়ি আইএম-এর পক্ষ থেকে জলপাইগুড়ি জেলাশাসক মাধ্যমে দেশের প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে দাবি করা হয়েছে চিকিৎসকদের সুরক্ষা দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার একটি নতুন আইন করার৷