চুম্বকের ধর্ম হল যে কোনও ধাতুকে আকর্ষণ করা। ধাতব পদার্থগুলো আটকে থাকে চুম্বকের সঙ্গে। মানুষের শরীরে এই জাতীয় ক্ষমতা থাকার কথা নয়। কিন্তু বসনিয়া এন্ড হার্জেগোভিনার এক ৫ বছর বয়সী শিশু তাক লাগিয়ে দিয়েছে গোটা বিশ্বকে। সব থিয়োরি উল্টে-পাল্টে নিজেই হয়ে উঠেছে আস্ত একখানা চুম্বক। আরমান ডেলিচ নামের এই শিশুটির পুরো শরীরই যেন চুম্বকের তৈরি। যে কোনও ধাতব পদার্থ বিস্ময়করভাবে আটকে থাকে আরমানের শরীরে।

কমিকস গল্প থেকে নির্মিত এক্স-ম্যান ছবির ভিলেন ম্যাগনেটোর ক্ষেত্রে এমন ঘটনা দেখা গিয়েছিল। ম্যাগনেটোর শরীর যে কোনও ধাতব পদার্থকে আকর্ষণ করতে পারত। তবে ম্যাগনেটো হল কাল্পনিক চরিত্র। বাস্তবে তার মতো এমন ক্ষমতা কোনও মানুষের শরীরে দেখতে পাওয়া রীতিমতো বিস্ময়কর ব্যাপার। আরমারের শরীরের ধাতব পদার্থ আকর্ষণের ক্ষমতা তাই সবাইকেই বিস্মিত করেছে। এমনকি চিকিৎসকরাও এই ঘটনায় হতবাক হয়ে গেছেন। এর কোনও ব্যাখ্যা দাঁড় করাতে পারছেন না তাঁরা।

আরমানের বাবা হোসেইন জানিয়েছেন, একদিন টেলিভিশন দেখার সময় আরমানের এই শরীরের এই বিস্ময়কর ক্ষমতা সম্পর্কে জানতে পারেন তারা। শিশুটির শরীরে কিছু কাঁটাচামচ ও কয়েন আটকে থাকতে দেখেন। এরপর ঘরের আরও অনেক জিনিসপত্রই আরমানের শরীরে ছোঁয়ালে তা সেখানে আটকে গেছে। ঠিক যেভাবে ধাতব জিনিস চুম্বকের সঙ্গে আটকে যায়। একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, আরমানের বুকে তিনটি চামচ, একটি কাঁটা চামচ ও ১৩টি কয়েন আটকে আছে। সেগুলো মাটিতে পড়ছে না। তার পিঠেও বেশ কিছু চামচ ও কয়েন আটকে আছে। নিজের শরীরের এই ক্ষমতা সম্পর্কে আরমান বলেছে, ‘যখন শরীরে কোনও ধাতব পদার্থের ছোঁয়া লাগে তখন শরীরকে চুম্বকের মতোই মনে হয় আমার। কোনও কারণে আমার রাগ হলে এই ক্ষমতা আরও বেড়ে যায়।’

দেখুন সেই বিস্ময় ভিডিও: