দেবাদিদেব মহাদেবের ছবি দেখলেই যেন এক অদ্ভুত অলৌকিক অনুভূতি হয় অনেকেরই৷ দেবতাদের মধ্যে মহাদেবের সহজ সরল জীবনযাত্রা কথা যেন কৌতুহল বাড়িয়ে তোলে আরও অনেকটাই৷ কেন তাঁর হাতে ত্রিশূল, কেন তাঁর হাতে ডমরু, কেন সাপ তাঁর সঙ্গী এমন আরও বহু প্রশ্নই মনে উঁকি দিয়ে যায়৷ তেমনই কিছু প্রশ্নের উত্তর রইল আপনাদের জন্য…

ত্রিশূল- মহাদেবের ত্রিশূল তিনটি শক্তির প্রতীক- জ্ঞান, ইচ্ছা এবং সম্মতি৷

ডমরু- শিব ঠাকুরের ত্রুশূলে বাঁধা ডমরু বেদ এবং তার উপদেশের প্রতীক যা আমাদের জীবনে এগিয়ে চলার রাস্তা দেখায়৷

আরও পড়ুন: দুর্গার হাতে বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র কেন থাকে জানেন?

রুদ্রাক্ষমালা- রুদ্রা৭ধারণ আসলে শুদ্ধতার প্রতীক৷ অনেকক্ষেত্রে তাঁর হাতে রুদ্রাক্ষমালা থাকে যা ধ্যানমুদ্রার সূচক বলে জানা যায়৷

নাগ- গলায়-মাথায় নাগের উপস্থিতি সর্বদা দেখা যায়, যা পুরুষের অহংকারের প্রতীক বলে মনে করা হয়৷

মাথায় চাঁদ- শিব ঠাকুরের মাথার চাঁদ এই ইঙ্গিত দেয় যে, কাল সম্পূর্ণরূপে তাঁর নিয়ন্ত্রণে৷

আরও পড়ুন: কেন পোস্টমর্টেমকে বাংলায় ময়নাতদন্ত বলা হয় জানেন?

জটার থেকে নির্গত জল- মহাদেবের জটাতে অনেকসময় একটি চেহারা দেখতে পাওয়া যায়৷ আসলে তিনি হলেন গঙ্গা নদী৷ য়অনেক ছবিতে আবার চেহারার পরবর্তে জটা থেকে নির্গত জলধারা দেখতে পাওয়া যায়৷

তৃতীয় নেত্র- তাঁর কপালের তৃতীয় নেত্র-কে জ্ঞানের প্রতীক বলে মনে করা হয়৷ অনেক ক্ষেত্রে বলা হয়, তিনি রেগে গেলে এই তৃতীয় চোখটি খুলে যায় এবং সব কিছু ভস্ম হয়ে যেতে পারে তাতে৷

বাঘ ছাল- শিব ঠাকুরের সব ছবিতেই দেখা যায় তিনি বাঘছাল পরে রয়েচেন, আবার কোনও কোনও ছবিতে এও দেখা যায় যে তিনি বাঘ ছালের ওপর বসে রয়েছেন৷ আসলে এই বিষয়টি নির্ভয়তারই প্রতীক৷