স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: রেশন কার্ডের ডিজিটাল প্রক্রিয়ার সাথে এনআরসির কোন যোগ নেই। সুতরাং তা নিয়ে দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। এমনকি এনআরসি নিয়েও অহেতুক কোন গুজবে কান দিবেন না। বৃহস্পতিবার বালুরঘাটে ঠিক এই ভাষাতেই এনআরসি ও ডিজিটাল রেশন কার্ড সম্পর্কে মানুষের মধ্যেকার ভীতি কাটানোর চেষ্টা করলেন বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব অর্পিতা ঘোষ।

এদিন বালুরঘাটের থানা মোড়ে এনআরসির প্রতিবাদে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের ডাকা সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে দলের সভাপতি তথা নাট্যব্যক্তিত্ব অর্পিতা ঘোষ বলেন যে মমতা বন্দোপাধ্যায় যতদিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আছেন ততদিন কেউ চাইলেও এখানে এনআরসি চালু করতে পারবে না। ডিজিটাল রেশন কার্ড নিয়ে কেউ কেউ অহেতুক মানুষের মধ্যে এনআরসি’র আতঙ্ক ছড়িয়ে বেড়াচ্ছেন। রেশন কার্ডের ডিজিটাল করার সাথে এনআরসি’র কোন যোগ নেই।

এদিন অর্পিতা ঘোষ সাধারণ মানুষকে আশ্বস্ত করে বলেন কেউ আতংকিত হবেন না। এই ডিজিটাল রেশনকার্ডের বিষয়টি সম্পূর্ণরূপে সাধারণের সুবিধার্থেই করা হচ্ছে। এর সাথে এনআরসির কোনো ব্যাপারই নেই৷

পাশাপাশি তিনি একথাও বলেন যে অসম সহ গোটা দেশে বাঙালিদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলে অর্পিতা বলেন যে একমাত্র বাংলায় মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় সরকার এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে। বিজেপি যতই শক্তিশালী হোক না কেন তৃণমূল তা রুখে দেবে বলেও দলের জেলা সভাপতি এদিন দাবি করেন৷

অর্পিতা বলে গোটা দেশে একমাত্র নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়, যিনি মাথা উঁচু করে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন। এব্যাপারে তিনি দলের কর্মীদের এই নির্দেশও দেন যে দুর্গা ও কালীপুজো পেরিয়ে গেলে জেলার প্রতিটি অঞ্চল ও বুথ স্তরে এনআরসি’র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করা হবে।

এদিন বালুরঘাটের এই কর্মসূচিতে অর্পিতা ঘোষ ছাড়াও অন্যান্য নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দুই বিধায়ক গৌতম দাস, তোরাব হোসেন, রাষ্ট্রমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা ও জেলার কার্যকরী দুই সভাপতি দেবাশিস মজুমদার এবং শুভাশিস পাল।