টোকিও: প্রথম বার জাপান ওপেনে অংশ নিয়েই বাজিমাত করলেন নোভাক জকোভিচ। ফাইনালে জন মিলম্যানকে হারিয়ে জাপান ওপেনের খেতাব জিতলেন সার্বিয়ান তারকা।

৭০ মিনিটের লড়াইয়ে বিশ্বের এক নম্বর নোভাক স্ট্রেট সেটে পরাজিত করেন মিলম্যানকে। ম্যাচের ফল জকোভিচের অনুকূলে ৬-৩, ৬-২। চলতি মরশুমে জোকারের এটি চতুর্থ খেতাব জয়। সার্বিকভাবে বর্ণোজ্জ্বল কেরিয়ারে এটি জকোভিচের ৭৬তম ট্রফি জয়। জাপানে গোটা সপ্তাহ জুড়েই দুরন্ত ফর্মে ছিলেন জোকার।

ম্যাচের শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে রানার্স মিলম্যান ভূয়সী প্রশংসায় ভরিয়ে দেন জকোভিচকে। সার্বিয়ান তারকাকে প্রকৃত চ্যাম্পিয়ন বলে বর্ণনা করেন মিলম্যান। ফাইনালের প্রতিদ্বন্দ্বীকে পালটা কুর্নিশ জানাতে ভোলেননি জোকারও।

ম্যাচের শেষে নোভাক বলেন, ‘জনকে ধন্যবাদ এমন সম্মান জানানোর জন্য। এখানে দাঁড়িয়ে দারুণ একটা অনুভুতি হচ্ছে। তোমার সম্পর্কে শুধু এটুকুই বলতে পারি যে, কোর্টের বাইরে তুমি যেমন একজন অসাধারণ মানুষ, কোর্টের মধ্যে ঠিক ততটাই ভালো টেনিস খেলোয়াড়।তোমার হার না-মানা মানসিকতা প্রশংসাযোগ্য।’

প্রথম বার জাপান ওপেনে অংশ নেওয়া নিয়ে নোভাক বলেন, ‘এই প্রথমবার আমি জাপান ওপেনে অংশ নিলাম। গোটা সপ্তাহটা দারুণ কাটল। শুধু কোর্টের লড়াইয়েই নয়, ম্যাচের বাইরেও উদ্যোক্তাদের আন্তরিকতায় আমি মুগ্ধ। শুধু আমার সঙ্গেই নয়, আমার গোটা টিমের সঙ্গে অসাধারণ ব্যবহার করেছেন আয়োজকরা। এমন উষ্ণ অভ্যর্থনা খুব কম টুর্নামেন্টই পাওয়া যায়। আমাদের মাঝে মাঝে মনে হচ্ছিল বুঝি নিজেদের ঘরেই রয়েছি। দিন দশেক হয়ে গেল জাপানে এসেছি। মনে হচ্ছে বুঝি অলিম্পিকে খেলতে এখানে ফিরে আসার জন্য আর তর সইছে না।’

শুধু জাপান ওপেনেই নয়, এই নিয়ে মোট ১০টি টুর্নামেন্টে প্রথমবার অংশ নিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলেন জোকোভিচ। ট্রফি ও প্রাইজমানি ছাড়াও এই টুর্নামেন্ট থেকে মূল্যবান ৫০০ রেটিং পয়েন্ট সংগ্রহ করলেন জোকার, যা তাঁকে বিশ্বের এক নম্বর হিসাবে মরশুম শেষ করার লড়াইয়ে বাড়তি অক্সিজেন যোগাবে। এই মুহূর্তে রাফায়েল নাদালের সঙ্গে জকোভিচের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে এক নম্বর তারকা হিসেবে বছর শেষ করার জন্য।