তিরুঅনন্তপুরম: বিয়ের ১০ দিনের মধ্যে হোয়াটসঅ্যাপে তালাক। আর তাতে রীতিমত হতবাক নববধূ। ঘটনায় আদালতের দ্বারস্থও হয়েছে ওই মহিলা। এখনও পর্যন্ত কোনও সদুত্তর পাননি তিনি।
কেরলের ওই মহিলার সঙ্গে আজমল বসির নামে এক ব্যক্তির বিয়ে হয়।

ওই মহিলা জানান, ১০ দিন পরে তাঁর কাছে তাঁর স্বামীর একটি হোয়াটসঅ্যাপ আসে। সেখানে লেখা রয়েছে ‘তালাক’ ‘তালাক’ ‘তালাক’। এরপর ফোন করে একই কথা বলে তাঁর স্বামী। মেল করেও একই কথা লেখা হয়। এই ঘটনার কারণ জানতে চাইলে ফোনে মহিলার স্বামী জানান, ‘আপেল খেতে ভালবাসলেও, আমও খেতে চাই।’ এরপর ওই মহিলাকে জোর করে বের দেওয়া হয় শ্বশুরবাড়ি থেকে।

ওই মহিলা আরও জানিয়েছেন, তাঁকে দিনের পর দিন শ্বশুরবাড়িতে অত্যাচার করা হয়েছে। তারা ছেলেকেই সবসময় সমর্থন করেছে। আজমল বসির নামের ওই ব্যক্তি বর্তমানে দুবাইতে রয়েছে বলে দাবি ওই মহিলার। তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘তাঁকে তাঁর স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন ভুল তথ্য দিয়েছিল। বিয়েতে ১০ লক্ষ টাকা ও ৬৬০ গ্রাম সোনা দিতে হয়েছিল তার পরিবারকে। এখন সেই টাকা ফেরৎ চান তিনি। শ্বশুরবাড়ির পরিবারের কেউ আদালতে উপস্থিত হচ্ছে না।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ