নয়াদিল্লি: বিগত এক মাস ধরে লাদাখ সীমান্তে মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আছে ভারত ও চিনের সেনাবাহিনী। দফায় দফায় চলছে বৈঠক। সামরিক এবং কূটনৈতিক স্তরে একাধিক বৈঠকের পরও সেভাবে কোনও সমাধান সূত্র সামনে আসেনি।

এরই মধ্যে ফের প্রকাশ্যে এল কিছু স্যাটেলাইট ইমেজ। ইন্ডিয়া টুডের রিপোর্ট অনুযায়ী, ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির তরফ থেকে কিছু স্যাটেলাইট ইমেজ প্রকাশ করা হয়েছে। আর সেখানেই দেখা যাচ্ছে ঠিক কত দূরে চিন এবং ভারতীয় সেনা দাঁড়িয়ে রয়েছে।

ওই স্যাটেলাইট ইমেজ স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে যে চিনের সেনাবাহিনী এখনো পিছপা হয়নি। ইমেজ অনুযায়ী ভারত এবং চিনের সেনাবাহিনীর মধ্যে ফারাক মাত্র আড়াই কিলোমিটারের। গালোয়ান ভ্যালিতে রয়েছে দুই দেশের বাহিনী।

স্ট্র্যাটেজিক পজিশন হিসেবে ভারতের থেকে অপেক্ষাকৃত সুবিধাজনক অবস্থানে আছে তারা, বলছে সূত্র। মার্চ মাসে প্রতি বছর ইন্দো টিবেটান বর্ডার পুলিশ ও সেনার যৌথ মহড়া হয়। লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের ধার ঘেঁষে মহড়ায় শান দেয় সেনা। এবছর করোনায় আক্রান্ত হন সেনাবাহিনীর বেশ কয়েকজন আধিকারিক। ফলে মহড়া হয়নি। সেই সুযোগে লাদাখে নিজেদের অবস্থান শক্ত করে ঘাঁটির সংখ্যা বাড়িয়ে নিয়েছে চিন।

সরকারি সূত্রে খবর মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহে এক জওয়ান করোনা আক্রান্ত হন। এতে কড়া নজরদারি শুরু হয়। সেনাবাহিনীর কোনও বৈঠক করা যায়নি। কোনও জমায়েত বা প্রশিক্ষণ করা যায়নি। ফলে ব্যহত হয়েছে সেনার মহড়া। ওই মার্চ মাসে অবশ্য চিন সেনাও কোনও মহড়া দিতে পারেনি করোনার জেরে। কিন্তু ফের লাদাখে মহড়া দিতে এলে ভারতের রণসজ্জা দেখে চিন্তায় পড়ে চিন। প্যাংগং লেকের পশ্চিম প্রান্ত জুড়ে রাস্তা তৈরির কাজ তখন শুরু করে দিয়েছে ভারত।

উল্লেখ্য এই লেকের পূর্ব প্রান্ত চিনের সীমান্ত হলেও, পশ্চিম প্রান্ত ভারতের অধীনে। সেখানেই রাস্তা তৈরি করেছে ভারত। তা নিয়েই আপত্তি চিনের। এই টানাপোড়েনে ক্রমশ উত্তেজনা বাড়ছে বিশ্বের সর্বোচ্চ সীমান্তের এলএসি (লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল) জুড়ে।

চিন যে বেশ ভালো সংখ্যক সৈন্য পাঠিয়েছে লাদাখ সীমান্তে সেকথা স্বীকার করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

কূটনৈতিক স্তরে ভারত এবং চিনের মধ্যে কথাবার্তা হচ্ছে বলে আগেই জানিয়েছিল কেন্দ্র। এবার দুই দেশের লেফটেন্যান্ট জেনারেল স্তরে কথা হবে বলে জানা গিয়েছে। আগামী ৬ জুন কথা বলবেন দুই দেশের আর্মি অফিসার।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল স্তরের এই বৈঠক থেকেই অনুমান করা যাচ্ছে, যে ভারত এবং চিনের কর্নেল, ব্রিগেডিয়ার এবং মেজর জেনারেল স্তরে বৈঠক হলেও তা ফলপ্রসূ হয়নি। কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণে আসেনি ভারত-চিন সংঘাত।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV