মুম্বই- সুশান্ত সিং রাজপুত এর মৃত্যুর তদন্ত করছে সিবিআই। একের পর এক তথ্য উঠে আসছে এই মামলাকে ঘিরে। বিভিন্ন মহল থেকে অভিযোগ উঠছে যে সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ানের মৃত্যুর সঙ্গে এই ঘটনার যোগ রয়েছে। দিশার তদন্তকে ঘিরেও নানা রকম জল্পনা চলছে।

জানা যাচ্ছে মৃত্যুর ঠিক আগে দিশা তার বান্ধবী অঙ্কিতাকে ফোন করেছিলেন। ৮ জুন মুম্বইয়ের মালাডে মৃত্যু হয় দিশা সালিয়ানের। মুম্বই পুলিশ জানিয়েছিল তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন ১৪ তলা বহুতল থেকে ঝাঁপ দিয়ে। এরপরে খবর প্রকাশ্যে আসে যে মৃত্যুর আগে সুশান্ত সিং রাজপুত কি নাকি শেষ বার ফোন করেছিলেন দিশা। কিন্তু টাইমস অফ ইন্ডিয়া সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে সুশান্তকে নয়।

মৃত্যুর আগে শেষ ফোন করেছিলেন বান্ধবী অঙ্কিতাকে। এমন দাবি করছে মুম্বই পুলিশ। মুম্বই পুলিশের ডিসিপি বিশাল ঠাকুর বলছেন, “দিশা শেষ ফোন করেছিলেন তাঁর বন্ধু অঙ্কিতাকে। অঙ্কিতার বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। এখনো পর্যন্ত ২০-২৫ জনের বয়ান এই তদন্তে রেকর্ড করা হয়েছে।”

এমনকি শনিবার রিপাবলিক টিভি খবর প্রকাশ করে যে, মৃত্যুর পরে দিশার পরনে কোনো পোশাক ছিল না। সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে জানা যাচ্ছে, মুম্বাই পুলিশ দাবি করেছে এই খবর সম্পূর্ণ মিথ্যা। তাঁরা জানাচ্ছেন বিশাল শরীরে ঠিক মতোই পোশাক ছিল। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় মুম্বই পুলিশ এবং দিশার বাবা-মা। প্রসঙ্গত মৃত্যুর আগে বাড়িতে বন্ধুদের সঙ্গে পার্টি করছিলেন দিশা।

সেই পার্টির ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে ইন্টারনেটের। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে দিশা তাঁর বন্ধুদের সঙ্গে পার্টিতে যথেষ্ট আনন্দ করছেন। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে হৃতিক রোশনের ছবি মিশন কাশ্মীর এর একটি গানে নাচছেন দিশা। দিশার বন্ধুদেরও নাচতে দেখা যাচ্ছে।

সম্প্রতি সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের হাতে এসেছে দিশা সালিয়ানের এক বন্ধুর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট। সেখান থেকেই জানা যাচ্ছে সেই রাতে ঠিক কী হয়েছিল। ওই হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ থেকে জানা যাচ্ছে, দিশা তাঁর বন্ধু ও ফিয়ন্সের সঙ্গে সেদিন পার্টি করছিলেন। পার্টিতে মাত্রাতিরিক্ত মদ্যপান করেছিলেন তিনি।

আর তার পরে নাকি অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েন তিনি। মদ্যপ অবস্থায় বলতে থাকেন, কেউ কারও জন্য ভাবিত নয়। তখন এক বন্ধু দিশাকে পার্টির মেজাজ নষ্ট করতে না করেন। তখনই দিশা ঘরে ঢুকে তা ভিতর থেকে লক করে দেন। বহুক্ষণ কোনও সাড়া না পেয়ে তাঁকে ডাকা হয়।

তিনি সাড়া না দিলে ফিয়ন্সে ও অন্যান্য বন্ধুরা দরজা ভেঙে ঢোকেন। দেখেন ব্যালকনি থেকে ঝাঁপ দিয়েছেন দিশা। সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা ছুটে নীচে যান। তখনও দিশা জীবিত ছিলেন। কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে যেতে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।

গত ৪ অগাস্ট এক সাংবাদিক বৈঠকে বিজেপি নেতা তথা মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী নারায়ন রানে দাবি করেন আত্মঘাতী হননি দিশা। তাকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। নারায়ন রানের এই মন্তব্য প্রকাশ্যে আসতেই নতুন করে ঘটনায় চাঞ্চল্য

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও