স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ডেঙ্গু ইস্যুতে রাজ্যের শাসক দলের কড়া সামলোচনা করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ কেন্দ্রের পাঠান অর্থের তথ্য সংবাদ মাধ্যমের সামনে প্রকাশ করে তিনি প্রমাণ করার চেষ্টা করলেন ডেঙ্গু রুখতে রাজ্য সরকার কতটা ব্যর্থ৷ পাশাপাশি ডেঙ্গু নিরাময়ে রাজ্যের তৃণমূল সরকারের কোনও সদিচ্ছা নেই বলেও জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি৷

শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপি রাজ্য সভাপতি পতঙ্গ বা পশু বাহিত রোধ নিরাময়ে গত দু’বছরে ও চলতি বছরে কেন্দ্রের পাঠান কত পরিমাণ টাকা রাজ্য সরকার খরচ করতে পারেনি৷ তা ফেরত গিয়েছে কেন্দ্রের কাছে৷ দিলীপ ঘোষের দেওয়া তথ্যে বলা হয়েছে, ২০১৫-১৬ অর্থবর্ষে ফেরত গিয়েছে ২২ কোটি টাকা এবং ২০১৬-১৭ অর্থ বর্ষে সেই টাকার পরিমাণ ১৯ কোটি৷ কেন্দ্রের পক্ষ থেকে পতঙ্গ ও পশু বাহিত রোগ নিরাময়ে চলতি বছরের পাঠান হয়েছে ১৯.৪ কোটি টাকা৷ ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাজ্য সরকার খরচ করতে পেরেছে ৫.৪ কোটি টাকা৷

এছাড়া দিলীপ ঘোষ তাঁর অভিযোগে জানিয়েছেন, চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণের জন্য গত বছর কেন্দ্রের পক্ষ থেকে রাজ্য সরকারকে পাঠান হয়েছিল ২৫ লক্ষ টাকা৷ যার পুরোটাই ফেরত গিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি৷ বিজেপির রাজ্য সভাপতি আরও অভিযোগ করেছেন, ডেঙ্গু রোধে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে গত বছরে পাঠান হয়েছিল ২.৫ কোটি টাকা, যার মধ্যে খরচ হয়েছে মাত্র ৫ লাখ টাকা এবং সচেতনতা প্রচারে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে পাঠান হয়েছিল ১.৫ কোটি টাকা, যার মধ্যে খরচ হয়েছিল ১.২৬ কোটি টাকা৷

শুক্রবার ডেঙ্গু সংক্রান্ত মামলায় হাইকোর্টের ভর্ৎসনার মুখে পড়তে হয়েছে রাজ্য সরকারকে৷ উচ্চ আদালতের তরফে রাজ্যের পেশ করা রিপোর্টের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েই প্রশ্ন তোলা হয়েছে৷ সেই বিষয়টিকে সামনে এনে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, বারবার হাইকোর্টে মুখ পুরছে রাজ্য সরকারের৷ এমনকি ডেঙ্গুকে মৃতের হার নিয়ে তথ্য গোপন করছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন সরকার তাও অভিযোগ করেছেন তিনি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।