স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: আশ্রমের নাবালিকা আবাসিকদের উপর যৌন নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেফতার হল ওই আশ্রমের ডিরেক্টর সহ এক মহিলা কর্মী৷ ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার কাঁকিনাড়া পানপুরে ওয়েসলিয়ান নামে একটি মিশনারিতে৷ অভিযুক্ত ওই ডিরেক্টরের নাম জে.কে.বার্ক ও মহিলা কর্মীর নাম দীপু সরকার৷ এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে জগদ্দল থানার অন্তর্গত কাকিনাড়া পানপুর এলাকায়৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই আবাসিক আশ্রমের এক শিক্ষিকা জগদ্দল থানার পুলিশকে ছাত্রীদের উপর যৌন নির্যাতনের কথা জানান৷ তার অভিযোগের ভিত্তিতে শুক্রবার গভীর রাতে জগদ্দল থানার পুলিশ আশ্রমে গিয়ে ডিরেক্টর জে.কে.বার্ক ও মহিলা কর্মী দীপুকে গ্রেফতার করে৷

নির্যাতিতা ছাত্রীদের অভিযোগ, তাদের অসহায়তার সুযোগ নিয়ে ডিরেক্টর বার্ক ছাত্রীদের দিয়ে ম্যাসাজ করাতো৷ সেই অজুহাতে দিনের পর দিন তাদের উপর যৌন নির্যাতন করত৷ এমনকি নাবালিকাদের টাকার লোভ দেখিয়ে তাদের মুখ বন্ধ করার চেষ্টাও করেছিল বার্ক৷ তাদের হুমকি দিয়ে বলা হত, এই ঘটনার কথা কাউকে জানালে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে৷

 

দিনের পর দিন হওয়া যৌন নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ছাত্রীরা ঘটনার কথা আশ্রমে পড়াতে আসা স্থানীয় এক শিক্ষিকাকে জানিয়ে দেয়৷  এরপরই ওই শিক্ষিকা স্থানীয় মাদ্রাল স্কুলের শিক্ষকদের বিষয়টি জানান৷ ওই স্কুল কর্তৃপক্ষ নাবালিকাদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে৷ শিক্ষিকা ও স্কুল কর্তৃপক্ষ মিলে জগদ্দল থানায় খবর দেয়৷ অভিযুক্ত ডিরেক্টরের কড়া শাস্তির দাবি করেছে দরিদ্র পরিবার থেকে আসা অসহায় আবাসিক নাবালিকারা৷

গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে জগদ্দল থানার পুলিশ৷ ছাত্রীদের ঘটনার বিষয়ে আরও জিঞ্জাসাবাদ করছে পুলিশ৷ ধৃত আশ্রমের ডিরেক্টর জে.কে.বার্ককে জেরা করছেন বারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের গোয়েন্দা বিভাগের আধিকারিকরা৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I