তমলুক: অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন তৃণমূল বিধায়ক সুজিত বসু৷ রবিবার দুপুরে লরির ধাক্কায় জখম হন বিধায়কের দেহরক্ষী কনস্টেবল অনুপ মহাপাত্র। তবে, বিধায়কের তেমন কোনও আঘাত না লাগলেও, জখন ওই পুলিশ কর্মীকে চণ্ডীপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভরতি করা হয়েছে৷ রবিবার দুপুরে কলকাতা থেকে কাঁথি যাওয়ার পথে চণ্ডীপুরের বৃন্দাবনপুর এলাকায় বিধায়কের গাড়ি দুর্ঘটনাগ্রস্থ হয়৷

স্থানীয় সূত্রে খবর, এদিন বৃন্দাবনপুর এলাকায় একটি লরি বিধায়কের পাইলট কারের পেছন দিক থেকে ধাক্কা মারে। জখম হন পাইলট কারে থাকা এক পুলিশ কর্মী৷ মুহূর্তেই বিধায়কের গাড়ির চালক জরুরি ব্রেক কশে গাড়ি থামিয়ে দেন৷ অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান তিনি৷ পরে পুলিশ ওই লরির চালকসহ গাড়িটি আটক করে থানায় নিয়ে যায়৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.