আগরতলা: করোনা সংক্রমণ এবং লকডাউনের জেরে কয়েকমাস বন্ধ থাকার পর রাজ্য সরকারের নির্দেশিকা মেনে খুলল আগরতলার নেতাজি সুভাষ রিজিওনাল কোচিং সেন্টার। সাড়ে পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর আনলক থ্রি’তে গাইডলাইন মেনে জিমন্যাসিয়াম, যোগা, টেবল টেনিস অনুশীলন সোমবার পুনরায় শুরু হল এনএসআরসিসি’তে। আর দীর্ঘ লকডাউনে গৃহবন্দি থাকার পর অনুশীলন কেন্দ্র খুলতেই প্রস্তুতি শুরু করে দিলেন অলিম্পিয়ান দীপা কর্মকার।

কেন্দ্রের সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং, স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রোসিডিওর মেনে সমস্ত অনুশীলন কেন্দ্র জীবাণুমুক্ত করে তবেই অ্যাথলিটদের সেখানে প্রবেশের অনুমতি দিয়েছে ত্রিপুরা সরকার। শারীরীক সংস্পর্শের বিশেষ অবকাশ না থাকায় এনএসআরসিসি’তে শুরু হয়েছে টেবল টেনিস প্রস্তুতিও। তবে লকডাউন পরবর্তী প্রথমদিনের অনুশীলনে সেখানে আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে ‘পদ্মশ্রী’ দীপা। সাড়ে পাঁচ মাস পর প্রস্তুতিতে ফিরতে পেরে দারুণ খুশি তিনি। জানালেন, স্পোর্টস সরঞ্জামগুলোর কাছে ফিরতে পেরে দারুণ লাগছে।

দীপা জানিয়েছেন, ‘১৬ মার্চ বন্ধ হওয়ার পর এই প্রথমবারের জন্য আমি জিম সেশনে ফিরলাম। গত সাড়ে পাঁচ মাস বাড়িতেই কাটিয়েছি। আমাদের মতো যারা খেলাধূলার সঙ্গে যুক্ত তাদের কাছে দীর্ঘসময় ধরে ঘরে বসে থাকার বিষয়টা মানসিকভাবে দুর্বল করে দেয়। তবে আমার কোচ অনলাইনের মাধ্যমে কিছু ফিটনেস ট্রেনিং শিখিয়েছিলেন, যা ভীষণ কাজে দিয়েছে। অনুশীলনে ফিরতে পেরে দারুণ খুশি একইসঙ্গে ধন্যবাদ জানাতে চাই কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারকে। অনুশীলনের সময় আমরা সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং এবং অন্যান্য গাইডলাইন মেনে চলার চেষ্টা করছি।’

দীর্ঘ সাড়ে পাঁচ মাস সময়ের জিমন্যাস্ট ম্যাটে ফিরে দীপার প্রাথমিক লক্ষ্য ধীরে ধীরে নিজের পুরনো পারফরম্যান্স লেভেলে পৌঁছনো। কোচ বিশ্বেশ্বর নন্দী বলছিলেন, অতিমারি পরিস্থিতির কারণে সমস্ত ইভেন্ট পিছিয়ে গিয়েছে। তাই অ্যাথলিটদের এখন প্রধান লক্ষ্য ফিটনেস এবং ধীরে-ধীরে নিজের পরিচিত পারফরম্যান্স লেভেলে পৌঁছনো।

ত্রিপুরা স্পোর্টস কাউন্সিলের যুগ্ম সচিব অ্যাথলিটদের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত নিরাপত্তা প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, সরকারি নির্দেশিকা মেনে গোটা অনুশীলন কেন্দ্রকে স্যানিটাইজ করা হয়েছে। প্রবেশের আগে প্রত্যেক অ্যাথলিটের থার্মাল স্ক্রিনিং করা হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ১৪ বছরের ঊর্ধ্বে অ্যাথলিটদের অনুশীলনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী বিজ্ঞপ্তি না আসা অবধি এভাবেই সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মেনে অনুশীলন চলবে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও