মুম্বই: স্টারলিং-কাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অভিনেতা দিনো মোরিয়াকে তলব করল ইডি। সোমবারই তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়েছে। গুজরাতের স্টারলিং বায়োটেক লিমিটেডের বিরুদ্ধে ১৪ হাজার কোটি টাকার ব্যাংক দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। আর এই সংস্থা থেকেই নাকি টাকা পেয়েছিল দিনো মোরিয়াও।

অভিনেতা সঞ্জয় খানের জামাই ডিজে আকিল ওরফে আকিল আলিকেও একই ঘটনায় তলব করেছে ইডি। কী ভাবে ওই টাকা তাঁদের হাতে পৌঁছেছিল, তা জানতে চাওয়া হবে তাঁদের কাছে।

মডেলিং জগতের বিখ্যাত মুখ দিনো মোরিয়া বেশ কিছু ছবিতে অভিনয়ও করেছেন। বিপাশা বসুর সঙ্গে সম্পর্কের জেরে একসময় খবরের শিরোনামেও ছিলেন তিনি। এই মুহূর্তে মুম্বইতে ব্যবসা করেন তিনি। অভিনয়ে আর তেমনভাবে দেখা যায় না তাঁকে। ডিস্ক জকি ছাড়াও সুরকার হিসেবে জনপ্রিয় আকিল আলিও।

নীরব মোদীর বিরুদ্ধে ১৩ হাজার ৭০০ কোটি টাকা জালিয়াতির অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু সেই দুর্নীতিকেও ছাপিয়ে গিয়েছে সন্দেসারা গ্রুপ এবং তাদের অধীনস্থ ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা স্টারলিং বায়োটেক লিমিটেড। সংস্থার বিনিয়োগকারী তথা পৃষ্ঠপোষক নিতিন সন্দেসারা, চেতন সন্দেসারা এবং দীপক সন্দেসারা ইতিমধ্যেই গা ঢাকা দিয়েছেন বলে অভিযোগ। ২০১৭-র অক্টোবরে তাঁদের বিরুদ্ধে ৫ হাজার ৩৮৩ কোটি টাকার প্রতারণা মামলা দায়ের করে ইডি।

তদন্তে নেমে পরবর্তী কালে আরও ৯ হাজার কোটি টাকার প্রতারণা সামনে আসে। অন্ধ্র ব্যাংক, ইউকো ব্যাংক, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া, এলাহাবাদ ব্যাংক এবং ব্যাংক অব ইন্ডিয়া-সহ বিভিন্ন ব্যাংকের কনসর্টিয়াম এবং তাদের বিদেশের শাখা থেকে ওই সংস্থা বিপুল পরিমাণ ঋণ নিয়েছে বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয় ২৪৯টি ভারতীয় এবং ৯৬টি বিদেশি ভুয়ো সংস্থার মাধ্যমে ওই টাকা পাচার করারও অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে।

গত সপ্তাহে, দেশ-বিদেশ মিলিয়ে স্টারলিং বায়োটেক লিমিডেটের ৯ হাজার ৭৭৮ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে ইডি।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও